ঢাকা, ২৪ এপ্রিল ২০১৮, মঙ্গলবার

অস্কার-এ তারকারা কি খাবেন?

| ৪ মার্চ ২০১৮, রোববার, ১০:৩৭

রোববার রাতেই বসতে যাচ্ছে, বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে সম্মানজনক আর আকর্ষণীয় আসর, অস্কার পুরস্কার প্রদানের আসর।
দিনটি পরিচালক, অভিনেতা, চিত্রনাট্যকার থেকে শুরু করে চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সবার জন্য যেমন বড় একটি দিন, তেমনি এই দিনটি ঘিরে মঞ্চের পেছনের অনেকেও মুখিয়ে থাকেন।
যেমন ধরুন, অনুষ্ঠানের মঞ্চে তারকারা কোন গয়না পড়ে উঠবেন কিংবা পুরস্কার প্রদানের পর তারকারা কি খাবেন ।
তবে মনোনয়ন পাওয়া কুশীলবেরা প্রত্যেকে যে গিফট ব্যাগ নিয়ে বাড়ি যাবেন তার ভেতরে কি থাকবে---তা নিয়েও হলিউড এখন সরগরম। হলিউডের কোডাক থিয়েটারে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জাঁকজমকপূর্ণ এ আয়োজন ।
বছরের এই একটি দিনে কোন আয়োজনে যেন সামান্য ত্রুটি না থাকে, সেই চেষ্টা অবিরাম করে যাচ্ছেন কয়েক হাজার মানুষ। সবাই শেষ মূহুর্তের প্রস্তুতিতে ব্যস্ত।
যারা মঞ্চ তৈরির কাজ করছেন, যারা বিভিন্ন পরিবেশনা নিয়ে হাজির থাকবেন মঞ্চে, যারা পুরষ্কার তুলে দেবেন, যারা আলোর ব্যবস্থা করছেন- তাদের কারও এখন দম ফেলবার সময় নেই।
নির্দিষ্ট দিনে সবাই নিখুঁতভাবে নিজের নিজের কাজটি করবেন। এর বাইরেও আছে আরো অনেকে। যেমন ধরুন, পুরষ্কার বিতরণ শেষে তারকারা যখন ডিনারে বসবেন, তাদের টেবিলে যেসব মুখরোচক খাবার পরিবেশন করা হবে, সেসব তৈরি করছেন ওলফগাং পাক। তিনি বলছেন, "সবাই ভীষণ ক্ষুধার্ত থাকবে। আর জানেনই তো, একজন রাঁধুনির কাছে এর থেকে ভালো কোন খবর হতে পারে না। আমি ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের খাবার বানাচ্ছি। এই যেমন, ট্রাফল ছাড়া ম্যাকারনি আর চিজ রেঁধেছি। এটা অনেকের প্রিয়। মেরিল স্ট্রিপ শেষবার আমাদের চিকেন পপ পাই খুব পছন্দ করেছিলেন। আমার কিচেনের সবাই অপেক্ষায় আছে, তিনি হয়তো এবারো এসে বলবেন ওলফগাং আমাকে চিকেন পপ পাই দাও"।
আরো নানা স্বাদের খাবারের সুবাসে অনেকেই রোজ ঢু মারছে রসুইখানায়।
২৪ ক্যারেট স্বর্ণের প্রলেপ দিয়ে অস্কার পুরষ্কারের আকৃতিতে বানানো হচ্ছে কেক। বিপুল সংখ্যক কেক বানানো হচ্ছে, সবাই সেগুলো চেখেও দেখছেন।
ওলফগাং নিজেও সকাল থেকে বারোটির মত এই কেক খেয়ে ফেলেছেন।
অনুষ্ঠানের মঞ্চে তারকারা যেসব গয়না পরে উঠবেন, সেগুলো সরবরাহ করবে নামী জুয়েলারি প্রতিষ্ঠান সমূহ।
এক রাতের জন্য তারা জেনিফার লরেন্স বা অ্যাঞ্জেলিনা জোলিকে পরতে দেবেন বহুমূল্য রত্নখচিত গয়নাগুলো।
তার আগে কোন তারকা কি কাপড় পরবেন, তার সঙ্গে ঠিক কোন গয়নাটি মানাবে, সেটি ঠিক করার জন্য রয়েছে স্টাইলিস্ট।
আর বিশ্বখ্যাত সব ব্রান্ডও তৈরি তারকাদের একরাতের জন্য গয়না ধার দিতে।
ডিজরী গালাস সামলাচ্ছেন সেই গয়নার ভাণ্ডার। তিনি বলছেন, " আমাদের কাছে ইতিমধ্যেই বহু পরিমাণে গয়না জমা পড়েছে। গয়নাটি পড়ে তারা অনুষ্ঠান শেষে ভ্যানিটি ফেয়ারেও যেতে পারেন, কিন্তু গয়নাটি যদি হয় সুপার সুপার দামী, তাহ...লে সেটার সঙ্গে আসলে একজন নিরাপত্তারক্ষী দেয়া হয়। আর সেক্ষেত্রে অস্কার শেষ হবার সঙ্গে সঙ্গে সেটি ফেরত দিতে হয়"।
গালাস বলছেন, এটি প্রতিষ্ঠানগুলো করে নিজেদের বিজ্ঞাপনের অংশ হিসেবেই। অনেক তারকাই পরে ওই গয়নাটি নিজেরা কেনেন। তার বাইরে অস্কার শেষ হবার পরেই প্রতিটি গয়নার প্রচুর অর্ডার আসে সারা দুনিয়া থেকে।
এতো গেল গয়নার কথা। এছাড়া পুরষ্কারের জন্য মনোনয়ন পাওয়া প্রতি তারকার জন্য থাকে একটি করে গিফট ব্যাগ।
আর তাতে প্রতিবছরই যুক্ত করা হয় অভিনব সব জিনিসপত্র---দামী পারফিউম থেকে ওয়াইনের বোতল, মেকাপ সামগ্রী থেকে মোবাইল ফোন পর্যন্ত।
উপহার সামগ্রী একটি ব্যাগে ভরে সেগুলো তারকাদের হাতে পৌঁছানোর দায়িত্ব পেয়েছে যে প্রতিষ্ঠান, তার প্রধান বলছিলেন, পুরষ্কার না পেলেও এই গুডিজ ব্যাগ সবার মন ভালো করে দেয়।
তিনি বলেন, "সবাই অস্কার অনুষ্ঠানের অংশ হতে চায়। পোশাক আর গয়নার ডিজাইনার থেকে শুরু করে পিৎজা কোম্পানি—সবাই। আমরা ভাবলাম যে, পুরষ্কার সবাই না পাক, কিছু না কিছু মনে রাখার পর যেন সবাই পায়। এবার এ ধরণের অনেক গুডিজের সাথে সবাই পাবে একটি করে ডিএনএ কিট। আপনি কেবল হাত ঘুরালেই এটি থেকে জানতে পারবেন ৭৫ ধরণের জেনেটিক রিপোর্ট। সত্যি কথা বললে, আমি মেরিল স্ট্রিপের সেই রিপোর্ট জানতে চাই"।
এখানেও আসলে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নিজেদের পণ্যের মার্কেটিং করে। আর যেকোনো পণ্যের বিজ্ঞাপনের জন্য হলিউড তারকাদের চেয়ে বড় অ্যাম্বাসেডর আর কারা হতে পারেন?
আর তাও যদি তারকাদের চুক্তি করানো এবং বাড়তি পয়সা গোনার ঝামেলা ছাড়াই হয়ে যায়, এর চাইতে ভালো আর কি হতে পারে? ফলে নামী প্রতিষ্ঠান বলুন আর তারকাদের কথা বলুন, সবার জন্য অস্কার পুরষ্কারের রাতটি যে আনন্দের, তাতো বলাই যায়।

সূত্রঃ বিবিসি

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।