× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা রম্য অদম্য
ঢাকা, ২২ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার
খুলনার জনসভায় ফখরুল

অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করা হবে

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা থেকে | ১০ মার্চ ২০১৮, শনিবার, ৭:২৭

নিরপেক্ষ সরকার ও স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠনের মাধ্যমে অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপির খুলনা বিভাগীয় জনসভায় অংশ হিসেবে তিনি বলেছেন, এ আন্দোলন শুধুমাত্র খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য নয়, মানুষের ভোটের, ভাতের ও গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার আন্দোলন। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কোন হুমকি-ধামকির কাছে মাথা নত করবেন না। নিরপেক্ষ সরকার ও স্বাধীন নির্বাচন কমিশন গঠনের মাধ্যমে অবরুদ্ধ গণতন্ত্রকে মুক্ত করা হবে। এদিকে দলের চেয়ারপারসন কারাবন্দি খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চলমান আন্দোলন কর্মসূচির অংশ হিসেবে খুলনা বিভাগীয় জনসভায় ব্যাপক শোডাউন করেছে বিএনপি। খুলনার হাদিস পার্কে বিএনপির জনসভাকে কেন্দ্র করে প্রশাসন সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করলে সার্কিট হাউস মাঠে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল দলটি। প্রশাসনের তরফে সে ভেন্যুটি ব্যবহারেরও অনুমতি না পাওয়ায় শহরের কেডি ঘোষ রোডে মহানগর বিএনপি কার্যালয়ের সামনে জনসভাটি আয়োজন করা হয়। সর্বশেষ দলীয় কার্যালয়ের সামনে করতে চাইলেও বাধা দেয়া হয়।
সকালেও দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থান নেয়। তবে দুপুরে পুলিশের মৌখিক অনুমতির প্রেক্ষিতে বিকাল ৩টা থেকে জনসভা শুরু হয়। মহানগর, জেলা, উপজেলা বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলসহ দলের অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী সেখানে সমবেত হন। দলের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন শ্রেণি- পেশার মানুষের অংশগ্রহণে জনসভায় বিপুল সংখ্যক মানুষের ঢল নামে। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সিনিয়র নেতারা জনসভায় অংশ নেন। জনসভায় অংশ নিয়ে নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন সেøাগান দিতে থাকেন। এদিকে জনসভা শুরুর আগেই খুলনা-৩ নির্বাচনী আসনে বিএনপির সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী সাবেক ছাত্রদল নেতা রকিবুল ইসলাম বকুলের অনুসারী কয়েক হাজার নেতাকর্মী জনসভায় যোগ দেন। তাদের হাতে হাতে ছিল জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান এবং ধানের শীষ সংবলিত প্ল্যাকার্ড ও পোস্টার। তারা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন সেøাগানে সেøাগানে জনসভাস্থল মুখরিত করে তোলেন। এদিকে বিএনপি জনসভাকে কেন্দ্র করে খুলনা মহানগর বিএনপি কার্যালয়ে দুই পাশের সড়ক, খুলনা হাদিস পার্ক, পুরাতন যশোর রোড, পিকচার প্যালেস মোড় এলাকায় সতর্ক অবস্থানে ছিল পুলিশ। পাশাপাশি শহরের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের সাঁজোয়া যান মোতায়েন ছিল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
jane alam
১০ মার্চ ২০১৮, শনিবার, ৭:৫২

জনসভা করতে না দিয়ে সরকার ভুল করছে।তাতে প্রমাণ হয় সরকার বি এন পি,কে ভয় করে, এর পরিণাম ভাল হবে মনে হয়না, সরকার যতই উন্নয়নের কথা বলোক জনগণ কিন্তু পরিবর্তণ চায়

অন্যান্য খবর