× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার

উচ্চ আদালতে আরো নারী বিচারক নিয়োগে সচেষ্ট থাকবো: প্রধান বিচারপতি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | ১১ মার্চ ২০১৮, রবিবার, ৯:৫২


উচ্চ আদালতে আরো বেশি সংখ্যক নারী বিচারক নিয়োগে সচেষ্ট থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তিনি বলেছেন, অধিকাংশ নারী বিচারক তাদের দায়িত্ব পালনে যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। উচ্চ আদালতে আরো অধিক সংখ্যক নারী বিচারপতি নিয়োগে আমরা সচেষ্ট থাকবো। গতকাল রাজধানীর বিচার প্রশাসন ও প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউশনে তাকে দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ প্রতিশ্রুতি দেন প্রধান বিচারপতি। বাংলাদেশ মহিলা জাজ অ্যাসোসিয়েশন এ সংবর্ধনার আয়োজন করে। প্রধান বিচারপতি তার বক্তব্যে জেলা দায়রা জজ এবং চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে আরো নারী বিচারক নিয়োগের বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনার আশ্বাস দেন। জেলায় আবাসন বরাদ্দের ক্ষেত্রে নারী বিচারকদের অগ্রাধিকার দিতে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, স্বামী-স্ত্রী দুজনই বিচারক হলে তাদের একই কর্মস্থলে রাখার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হবে। সঙ্গত কারণে সেটা সম্ভব না হলে পার্শ্ববর্তী জেলায় পদায়ন করা হবে।
নারীর ক্ষমতায়নের প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের বিভিন্ন পদক্ষেপ ও রায়ের কথা উল্লেখ করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। তিনি বলেন, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী কর্মক্ষেত্রে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। তাছাড়া নারীরা যাতে ফতোয়ার বলি না হয়, সে বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের যুগান্তকারী রায় রয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। বাংলাদেশের নারী বিচারকরা নারীর ক্ষমতায়নের একটি অনন্য অধ্যায় বলে মন্তব্য করেন শিরীন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন, বাংলাদেশে যে নারী বিচারকরা রয়েছেন তারা অত্যন্ত দক্ষতা, যোগ্যতা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিচারকাজ পরিচালনা করে যাচ্ছেন।
স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী আরো বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে এগিয়ে আসাই এক সময় নারীদের জন্য চ্যালেঞ্জ ছিল। সেই চ্যালেঞ্জ আজ বাংলাদেশের নারীরা উত্তরণ ঘটিয়েছে। আজকের চ্যালেঞ্জ হচ্ছে, নারীর জন্য অনুকূল পরিবেশ নিশ্চিত করা। বাংলাদেশ মহিলা জাজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি তানজিনা ইসমাইলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সংগঠনটির উপদেষ্টা আপিল বিভাগের সাবেক বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি সালমা মাসুদ চৌধুরী ও বিচারপতি জিনাত আরা। অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেয়া হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর