× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামে বন্দুকযুদ্ধে নিহত ৪

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, নারায়ণগঞ্জ থেকে | ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার, ৯:২৮

নারায়ণগঞ্জে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত দলের দুই সদস্য নিহত হয়েছে। র‌্যাবের দাবি, নিহত একজন ডাকাত দলের সর্দার। তার নাম জিল্লুর রহমান ওরফে জিল্লু (৩৫)। ১১ই মার্চ দিন শেষে রাত সোয়া ১২টায় গাজীপুরের শ্রীপুরস্থ মাস্টারবাড়ি এলাকা থেকে র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তার করে। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ভোরে সদর উপজেলার আলীরটেক এলাকায়। এ ঘটনায় দুই র‌্যাব সদস্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে গুলিসহ একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
র‌্যাব-১১ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক মো. জসিম উদ্দীন চৌধুরী, পিপিএম জানান, গত ৫ই মার্চ রাত দেড়টা দিকে নারায়ণগঞ্জ সদর থানাধীন গোপচরস্থ ওরিয়ন গ্রুপের ডিজিটাল পাওয়ার প্লান্টের নিকট ধলেশ্বরী নদীতে নোঙ্গর করে থাকা একটি জাহাজে সংঘবদ্ধ নৌ-ডাকাত দল বিভিন্ন প্রকার আগ্নেয়াস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হানা দেয়।
তারা জাহাজের মাস্টারসহ অন্যদের মারধর করে এবং জাহাজের কর্মচারীদের নিকট থাকা নগদ অর্থ, মোবাইল ফোন, জাহাজের বিপুল পরিমাণ তেল, জাহাজের ব্যাটারি, রেফ্রিজারেটর, ফ্যান, খাবার সামগ্রীসহ আনুমানিক ৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ডাকাতি করে নিয়ে যায়। ডাকাতদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে জাহাজের মাস্টারসহ কয়েকজন গুরুতরভাবে আহত হয়। উক্ত ঘটনায় জাহাজের মালিক পক্ষ বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি ডাকাতির মামলা করে। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে র‌্যাব-১১ এর একটি আভিযানিক দল নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ওদিনই ঢাকা জেলার সাভার থানাধীন কাউন্দিয়া এলাকা হতে উক্ত ডাকাতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ৩ জনকে আটক করতে সক্ষম হয়। এ সময় তাদের দেয়া তথ্যমতে ডাকাতির মালামাল উদ্ধার করা হয়। তিনি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতদের তথ্যমতে, ১১ই মার্চ দিন শেষে রাত সোয়া ১২টায় গাজীপুরের শ্রীপুরস্থ মাস্টারবাড়ি এলাকা থেকে ডাকাত দলের প্রধান মো. জিল্লুর রহমান ওরফে জিল্লু (৩৫) এবং আবদুর রহমান (২০), মোঃ বিল্লাল হোসেন (২০) ও মো. শফিক (২২) কে গ্রেপ্তার করা হয়। তার তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১ এর আভিযানিক দল ডাকাত সর্দার জিল্লুরসহ রাত পৌনে ৪টার দিকে নারায়ণগঞ্জের সদর থানাধীন গোগনগরস্থ গোপচর ধলেশ্বরী নদীর খেয়াঘাটে পৌঁছালে ৮-১০ জন অজ্ঞাতনামা ডাকাত র‌্যাবের ওপর এলোপাথাড়ি গুলিবর্ষণ শুরু করে। এ সময় র‌্যাব সদস্যরাও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি করে। আনুমানিক ১৫ মিনিট গুলি বিনিময়ের পর ডাকাতরা পিছু হটতে বাধ্য হয় এবং ইঞ্জিনচালিত ট্রলারযোগে নৌ-পথে পালিয়ে যায়। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা জিল্লুরসহ ২ জনকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে দ্রুত নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে প্রেরণ করলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদেরকে মৃত ঘোষণা করে। গুলি বিনিময়কালে ২ জন র‌্যাব সদস্যও আহত হয়। ঘটনাস্থল হতে র‌্যাব সদস্যরা ১টি বিদেশী পিস্তল, ১টি ম্যাগাজিন, ১ রাউন্ড গুলি, ১টি গুলির খালি খোসা, ৫ রাউন্ড কার্তুজ, ১টি রামদা ও ১টি চাপাতি উদ্ধার করে।
এদিকে সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি জানান, পুলিশের সঙ্গে বন্ধুকযুদ্ধে জাহাঙ্গীর (৩৮) নামের এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এ সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় অস্ত্র, গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ আরো ৫ ডাকাতকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ভোর রাতে উপজেলার জামপুর ইউপির মীরেরবাগ এলাকায়। নিহত ডাকাত জাহাঙ্গীর মুন্সিগঞ্জ জেলার গজারিয়া থানার লঘুরচর গ্রামের আশেক ব্যাপারীর ছেলে। তার বিরুদ্ধে সোনারগাঁসহ বিভিন্ন থানায় খুন ও ডাকাতিসহ ১২টি মামলা রয়েছে। সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মোরশেদ আলম সোমবার প্রেস বিফিংয়ে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে উপজেলার জামপুর ইউপির মীরেরবাগ এলাকায় একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। সেই সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ সেখানে অভিযান চালালে ডাকাতরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে জাহাঙ্গীর নামের এক ডাকাত নিহত হয় ও ডাকাতদের গুলিতে পুলিশের ২ সদস্য ইউসুফ ও লুৎফর আহত হয়।
ওদিকে চট্টগ্রাম প্রতিনিধি জানান, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার জঙ্গল সলিমপুরে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে কালু (৪২) নামে এক ডাকাত নিহত হয়েছে। সেই সঙ্গে মো. আরমান (২০) ও মো. এরশাদ (৩৪) নামে দুই ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গতকাল ভোরে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ডাকাত দলের ফেলে যাওয়া একটি বিদেশি পিস্তল, ১৩টি দেশীয় অস্ত্র, বিপুল পরিমাণ গুলি ও রকেট প্লেয়ার উদ্ধার করে র‌্যাব। চট্টগ্রাম র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান বলেন, নিহত কালু চট্টগ্রামের শীর্ষ ভূমিদস্যু ও ডাকাত। তার বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগরী ও চট্টগ্রাম জেলার বিভিন্ন থানায় খুন, ডাকাতি ও অস্ত্র আইনে ৭টি মামলা রয়েছে। র‌্যাবের এ কর্মকর্তা জানান, গতকাল ভোর রাতে সীতাকুণ্ড উপজেলার জঙ্গল সলিমপুরের দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় ডাকাত দলের অবস্থানের খবর পেয়ে অভিযান চালায় র‌্যাব। এ সময় ডাকাতরা র‌্যাব সদস্যদের লক্ষ্য করে গুলি চালায়। র‌্যাবও আত্মরক্ষার জন্য গুলি ছুড়ে। উভয়পক্ষের গোলাগুলির একপর্যায়ে ডাকাত দলের সদস্যরা পাহাড়ের মধ্য দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে কালু ডাকাতের লাশ ও দুই ডাকাতকে গ্রেপ্তার করে। ফেলে যাওয়া অস্ত্রশস্ত্রও উদ্ধার করে র‌্যাব।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর