ঢাকা, ২৩ জুন ২০১৮, শনিবার

কুমিল্লায় টিউবওয়েলের পানি পানে মা-শিশুর মৃত্যু

মনোহরগঞ্জ (কুমিল্লা) প্রতিনিধি | ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার, ৬:৩৫

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে টিউবওয়েলের পানি পান করে মা ও শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে আরো ৫ জন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। মনোহরগঞ্জের নাথেরপেটুয়া ইউনিয়নের বিনয়ঘর ব্যাপারি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। টিউবওয়েলের পানি পান করে খালেদা আক্তার খুকি (২০) ও তার ৩ মাস বয়সী কন্যা শিশু ফারজানা আক্তার ফারিয়া মৃত্যু হয়।
স্থানীয় সূত্র জানা যায়, সোমবার টিউবওয়েলের পানি পান করে অসুস্থ হলে হাসপাতালে নেয়ার পথে শিশু ফারজানা মারা যায়। একই ঘটনায় অসুস্থ তার মা খালেদা আক্তার খুশিকে কুমেক হাসপাতালে ভর্তি করানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার রাতে মারা যায়। পরিবারের অন্য সদস্যরা হলো ফরিদা বেগম (৫০), সুলতান মিয়া (৫৫), হারুনুর রশিদ (৩০), নাইম (১০)।
তবে মনোহরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মো. শাহজাহান সরকার বলেন- টিউবওয়েলের পান করে কিভাবে দুই মাস বয়সি দুধের শিশুর মৃত্যু হবে। টিউবওয়েলের পানি পান করা ছাড়া অন্যকোন কারণ আছে কিনা? তদন্ত করে দেখছি।
নিহতদের স্বজন আবদুল মান্নান জানান, গত ৩ মার্চ শনিবার বাড়িতে স্থাপন করা টিউবওয়েলের পানি পান করে হারুনুর রশিদ অসুস্থ হলে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হারুন চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে দেখেন অন্যদের অবস্থাও খারাপ। এরই মধ্যে এলাকায় খবর ছড়িয়ে পড়লে চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা কবিরাজের মাধ্যমে অসুস্থদের ঝারফুঁক করে। কবিরাজ তাদের বাড়ির সব কিছু পরিবর্তনের পরামর্শ দিয়ে চলে যায়। কিন্তু সোমবার ১২মার্চ অবস্থার অবনতি দেখে তারা হাসপাতালে আসার পথে নিহত হয় তিন মাস বয়সি শিশু ফারিয়া ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মা খুকি মারা যায়।
এ বিষয়ে নাথের পেটুয়া ইউপি চেয়ারম্যান রুহুল আমিন মাস্টার জানান, আমাদের এলাকার পানিতে আর্সেনিক ও লবন রয়েছে। আমরা আর্সেনিক মুক্ত টিউবওয়েল বসিয়েছি। যারা আহত হয়েছে তারা আলাদা নতুন বাড়ি করে সেখানে থাকে। তাদের বিষয়টি সঠিকভাবে বলতে পারছি না।
মনোহরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু আসলাম জানান, মঙ্গলবার বিনয়ঘরের ওই এলাকায় স্বাস্থ্যকর্মীকে পাঠানো হয়েছে। সেখানে গিয়ে পানি পরীক্ষা শেষে বুঝা যাবে আসলে সমস্যাটা কোথায়। এখন পর্যন্ত স্বাস্থ্যকর্মীরা আমাকে কিছু জানাতে পারেনি। অসুস্থ হয়ে মা ও শিশু কি কারণে মারা গেল, সঠিক বিষয়টি জানতে পারলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।