ঢাকা, ২০ জুলাই ২০১৮, শুক্রবার

ভুল অস্ত্রোপচারে শিশু মৃত্যুর অভিযোগ, ক্লিনিক ভাংচুর

নওগাঁ প্রতিনিধি | ১৫ এপ্রিল ২০১৮, রোববার, ৫:৫২

নওগাঁ শহরে বেসরকারি ক্লিনিক শাহ নার্সিং হোম এন্ড ডায়াগনিষ্টিক সেন্টারে ভুল অপারেশনে ৮ বছরের শিশু আল এখলাস মারা যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পালিয়ে গেছে। আজ রোববার সকালে উত্তেজিত জনতা ক্লিনিক ভাংচুর করেছে। গতকাল শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে শহরের স্টার্ফ কোয়াটারের সামনের ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত শিশু আল এখলাস জেলার আত্রাই উপজেলার দিঘা উত্তরপাড়া গ্রামের শুকুর আলীর ছেলে।
নিহতের স্বজনরা জানান, গতকাল শনিবার বিকেল ২টার দিকে আল এখলাসকে ওই ক্লিনিকে ভর্তি করানো হয়। এরপর রাত ১০টার দিকে শিশুটির টনসিল অপারেশন করেন নাক, গান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আসাফুদৌল্লা। আধা ঘন্টা পর অস্ত্রোপচার শেষে রোগীকে বেডে রাখা হয়। কিন্তু দ্বিতীয়বার আবারও রোগীকে অস্ত্রোপচার রুমে নেয়া হয়। রোগীর অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক বলে রাত ১২টার দিকে রেফার্ড করে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ তড়িঘড়ি করে নিজেরাই অ্যাম্বুলেন্স ডাকে। এরপর রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সে উঠানোর পর ক্লিনিকের সব দরজায় তালা দিয়ে রাখা হয়। ঘটনার পর থেকে ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পালিয়ে গেছে।
নিহতের বাবা শুকুর আলী জানান, রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এখলাসকে নেয়া হলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকগণ তাদের জানান সে ৬/৭ ঘন্টা আগে মারা গেছে। এরপর আজ সকালে এখলাসকে নওগাঁয় ওই ক্লিনিকে নিয়ে এলে রোগীর আত্মীয়স্বজন ও স্থানীয়রা এসে ভীড় জমায়। এ সময় নিহতের স্বজন ও উত্তেজিত জনতা ক্লিনিক ভাংচুর করে। রোগীর স্বজনদের অভিযোগ অপারেশন থিয়েটারে ভুল অপারেশনে শিশু আল এখলাস মারা গেছে।
নওগাঁ সদর মডেল থানার ওসি সুমিত কুমার জানান, এ ব্যাপারে এখলাসের মা কামরুন্নাহার বাদী হয়ে ওই ক্লিনিকের মালিক,ডাক্তার, নার্সকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলার আসামীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার চেষ্টা চলছেও বলে জানান এ কর্মকর্তা।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।