× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার

চট্টগ্রামে নতুন জঙ্গি দল ‘দ্বীন ফোর্স এক্সট্রিম ও ইখওয়ান’

দেশ বিদেশ

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি | ১৬ এপ্রিল ২০১৮, সোমবার, ৯:২৪

চট্টগ্রামে নতুন দুটি জঙ্গি দলের সন্ধান পেয়েছে র‌্যাব। জঙ্গি দল দুটির সাত সদস্যকে ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে। এদের মধ্যে ‘দ্বীন ফোর্স এক্সট্রিম’ নামে একটি দলের পাঁচ জন ও ‘ইখওয়ান’ নামে অপর জঙ্গি দলের দুই সদস্য রয়েছে। র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের সিনিয়র সহকারী পরিচালক মিমতানুর রহমান শনিবার বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শুক্রবার রাতে নগরীর কোতোয়ালি থানার আনন্দবাগ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নতুন জঙ্গি দল দুটির সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ উগ্রবাদী বই, ল্যাপটপ ও মোবাইল জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তাররা হচ্ছে- কোতোয়ালি থানার ১৪৪ আনন্দবাগ (নূর আহম্মদ রোড) এলাকার বাসিন্দা মো. নাছির উদ্দিনের ছেলে মো. মহিউদ্দিন তামিম (২৯), আনোয়ারা উপজেলার চৌমুহনী এলাকার বাসিন্দা মো. নূর হোসেনের ছেলে মো. আফজার হোসেন (২১), ১৯ নং জামাল খান লেইন এলাকার আজাদ নিজামুল হকের ছেলে মো. ইমরান খান (২৭), মো. দাউদ নবী পলাশ (২৮), চৌধুরী মোহাম্মদ রিদওয়ান (২৭), এসএম জাওয়াদ জাফর (২৬) ও মো. মুনতাসিরুল মেহের (২৬)। এদের ছয় জনের বাড়ি কুমিল্লায়।

আর মুনতাসিরুলের বাড়ি নগরীর চট্টগ্রামে। আটক জঙ্গিদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবিরোধী আইন ২০০৯ এর ১০/১৩ ধারা মোতাবেক মামলা করে চট্টগ্রাম মহানগরীর কোতোয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান র‌্যাব কর্মকর্তা মিমতানুর রহমান। মিমতানুর রহমান জানান, গোয়েন্দা সংস্থার গোপন তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে জঙ্গি দল দুটির সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরমধ্যে গ্রেপ্তার মুনতাসিরুল মেহের কক্সবাজারে ইন্টারন্যাশনাল কমিটি অব দি রেডক্রসের (আইসিআরসি) ফিল্ড অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।
তিনি বলেন, ২০১৩ সালে জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েন মুনতাসিরুল। ২০১৫ সালে ঢাকার আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে পাস করেন তিনি। মুনতাসিরুল মেহের কোতোয়ালি থানাধীন রাবেয়া রহমান লেইন নূর আহম্মদ রোড়ের ৬৯৯/এ বেড়ে উঠেন। তার বাবার নাম মো. ছাদতুল মেহের।
গ্রেপ্তার হওয়া তামিমের হাত ধরে জঙ্গি দলে দ্বীন ফোর্স এক্সট্রিমে যোগ দেন মুনতাসিরুল। তামিম জঙ্গিবাদে জড়ান ২০১১ সালের দিকে। তামিমের ভাই তাফিমও জঙ্গি দলে আছে। তামিমের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ আছে বলেও তথ্য পেয়েছি। এসব তথ্য যাচাই করা হচ্ছে।
তামিম ২০১৭ সালে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে পাস করেন। আফজার চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মানব সম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী। ইমরান বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিবিএস কোর্সে অধ্যয়নরত।
দাউদ প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগ থেকে পাস করে প্রিমিয়ার সিমেন্ট লিমিটেডে কাজ করেন। রিদওয়ান ২০১১ সালে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, ঢাকায় ভর্তি হন কিন্তু ২০১৩ সালে তিনি নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি থেকে বহিস্কৃত হন। জাওয়াদ আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করে চট্টগ্রাম ইপিজেডে ইয়ংওয়ান নামে একটি পোশাক কারখানায় কর্মরত।
মিমতানুর রহমান বলেন, হোয়াটস অ্যাপে দ্বীন ফোর্স এক্সট্রিম ও ইখওয়ান নামের নামে দুটি গ্রুপে সক্রিয় থেকে জিহাদি ভিডিও ও বিভিন্ন দেশের মুসলিম নর-নারীদের উপর নির্যাতনের ছবি প্রচার করে নিজেদের কথিত জিহাদের জন্য প্রস্তুত করছিল তারা। এ ছাড়াও জঙ্গি সংগঠন আইএসের সমর্থক তারা।
তিনি বলেন, ২০১৩ সালে চট্টগ্রাম মহানগরীর আসকার দিঘীর পশ্চিম পাড়ে অবস্থিত আতরজান জামে মসজিদে ইবনে মোস্তাকের সঙ্গে তাদের পরিচয় হয় এবং তারা মোস্তাকের মাধ্যমে জঙ্গি তৎপরতায় উৎসাহী হয়ে ওঠে। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ ও এ দেশীয় সমমনা জঙ্গিদের একত্র করে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড করার কাজে লিপ্ত ছিল।
২০১৭ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি আফগানিস্তানে আইএস জঙ্গিদের গুলিতে রেডক্রসের ছয় কর্মী নিহত হয়েছিলেন। ওই ঘটনার পর রেডক্রসের আন্তর্জাতিক কমিটি আফগানিস্তানের সব ধরনের ত্রাণ কার্যক্রম সাময়িক স্থগিত করার কথাও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন র‌্যাব কর্মকর্তা মিমতানুর রহমান।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর