× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

স্ত্রীর দাবি নিয়ে ভাইস চেয়ারম্যানের বাড়িতে নারী এসআই

বাংলারজমিন

রাজনগর (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১৬ এপ্রিল ২০১৮, সোমবার, ৯:২৯

স্ত্রীর মর্যাদার দাবিতে রাজনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহমদের বাড়িতে গিয়ে ঘরের মালামাল তছনছ ও বাড়ির কেয়ারটেকারের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার অভিযোগে রাজনগর থানার নারী এসআই নাজমা বেগমকে পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়েছে। এ ঘটনায় রাজনগরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি গোপন থাকলেও গতকাল বিকাল থেকে রাজনগরে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এ ঘটনা। পরে রাজনগর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বিষয়টি মৌলভীবাজার পুলিশ সুপারকে জানালে তিনি তাকে (এসআই নাজমা) তাৎক্ষণিক ক্লোজ করে পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করেন। অসৌজন্যমূলক আচরণের কারণে ক্লোজ করা হয়েছে বলে রাজনগর থানার ওসি শ্যামল বণিক জানিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৪ সালের মাঝামাঝি সময়ে রাজনগর থানায় যোগ দেন উপ-পরিদর্শক নাজমা বেগম। প্রায় দুই বছর রাজনগর থাকা কালে তিনি বিভিন্ন বিষয়ে বিতর্কিত ভূমিকা রাখার কারণে আলোচিত-সমালোচিত হন। ট্রেনিং ও জুড়ি উপজেলায় ৩ মাস কাটিয়ে তিনি আবারো রাজনগর থানায় যোগ দেন।
এদিকে রাজনগর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ রাজনগর থানায় যাওয়া আসার সুবাদে তার পরিচয় হয় এবং এক সময় উভয়ে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন। পরে বিষয়টি বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়। এসআই নাজমা বেগম ও ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহমদ উভয়েই বিবাহিত। তাদের আগের সন্তানও রয়েছে। গত বৃহস্পতিবার বিকালে এসআই নাজমা বেগম ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহমদের বাড়িতে যান। ওই সময় বাড়িতে কেউ ছিলেন না। কেয়ারটেকার নয়ান মিয়ার সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় এসআই নাজমা বেগম তার ফোন না ধরা ও তাকে ঘরে না তোলা নিয়ে বিভিন্ন কথাবার্তা বলেন। এক পর্যায়ে ঘরের মালামাল তছনছ করেন বলে অভিযোগ করা হয় এবং কেয়ারটেকারে সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডার একপর্যায়ে কেয়ারটেকার হামলা করেন বলে সূত্রে জানা যায়। বিষয়টি রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শ্যামল বণিক মৌলভীবাজার পুলিশ সুপারকে জানালে তাকে তাৎক্ষণিক পুলিশ লাইনে ক্লোজ করা হয়। এনিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয় ইউপি সদস্য লিটন আহমদ বলেন, এসআই নাজমা ভাইস চেয়ারম্যানের বিয়ের বিষয়টি রাজনগরের সকলেই জানে। ভাইস চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়েছেন বলে শুনেছি এবং কেয়ারটেকারের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা ও হামলা হয়েছে বলে শুনেছি। এসআই নাজমা বেগম বলেন, আমি একটি মামলার তদন্ত কাজে ওই এলাকায় গিয়েছিলাম। আসার পথে ভাইস চেয়ারম্যানের বাড়িতে গিয়ে তাকে খোঁজ করেছি মাত্র। এর বেশি কিছু হয়নি। এ ব্যাপারে জানতে ভাইস চেয়ারম্যান ফারুক আহমদের মোবাইল ফোনে কল করলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।
রাজনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, এসআই নাজমাকে অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে ক্লোজ করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর