ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৮, সোমবার
আরব নিউজের খবর

বাংলাদেশ-সৌদি আরব সামরিক সম্পর্ক বৃদ্ধি

মানবজমিন ডেস্ক | ১৬ এপ্রিল ২০১৮, সোমবার, ১১:৪৭

বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে সামরিক সম্পর্ক জোরদার হয়েছে। দু’দেশের মধ্যে অনুষ্ঠিত হয়েছে যৌথ সামরিক মহড়া। এর আয়োজক সৌদি আরব। এ মহড়ার নাম ‘গালফ শিল্ড-১’। এক মাসব্যাপী এই সামরিক মহড়ায় অংশ নিয়েছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১৮ সদস্য। সৌদি আরবের সঙ্গে এটাই প্রথম বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর যৌথ সামরিক মহড়া। এতে বাংলাদেশ ও আয়োজক সৌদি আরব ছাড়াও ১৯টি অন্য দেশ অংশ নিয়েছে। এর উদ্দেশ্য অধিকতর সামরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি করা। সমাপনী অনুষ্ঠানে দিতে রোববার সৌদি আরবে পৌঁছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন সৌদি আরবের বাদশা সালমান। বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্র সচিব খোরশেদ আলম বলেছেন, যৌথ সামরিক মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন প্রধানমন্ত্রী হাসিনা। তিনি আরব নিউজকে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে এখন পর্যন্ত দ্বিপক্ষীয় কোনো বিষয়ে আলোচনার শিডিউল নেই। সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রীর সোজা চলে যাওয়ার কথা বৃটেনে। সেখানে তিনি যোগ দেবেন কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের সম্মেলনে। উল্লেখ্য, ১৯৯০ এর শুরুতে প্রথমবার উপসাগরীয় যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। বাংলাদেশের সুপরিচিত নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অবসরপ্রাপ্ত) আবদুর রশিদ বলেছেন, এই যৌথ সামরিক মহড়ায় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অংশগ্রহণের খুবই গুরুত্বপূর্ণ দিক রয়েছে। এই মহড়ার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে সামরিক সম্পর্কের এক নতুন দিগন্তের উন্মোচন হতে পারে। অবশ্যই বাংলাদেশের দিক থেকে এটি একটি অত্যন্ত বলিষ্ঠ সিদ্ধান্ত। উল্লেখ্য, সৌদি আরবের সঙ্গে কাজ করার জন্য বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে। আরেকজন নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল (অবঃ) হেলাল মোরশেদ খান বলেছেন, জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে আমরা বিশ্বব্যাপী একটি উঁচু সম্মান অর্জন করেছি। তাই ভালনার‌্যাবল পয়েন্টস (ভিপি), কি পয়েন্ট ইন্সটলেশনস (কেপিআই)-এর মতো বিষয়ের নিরাপত্তা রক্ষায় সৌদি আরবকে সহায়তা করতে পারে আমাদের সেনাবাহিনী। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে শ্রম বাজার, তেল কেনাবেচা, ধর্মীয় অনুসারীদের বিষয়ে বাংলাদেশের রয়েছে অনেক আগ্রহ। মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ড. দেলওয়ার হোসেন বলেন, সৌদি আরবের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক বজায় রেখে বর্তমানে বাংলাদেশ সেই সুযোগ নিতে প্রস্তুত।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।