× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার

‘সহসাই অস্ট্রেলিয়া সফর নয়’

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৭ এপ্রিল ২০১৮, মঙ্গলবার, ৯:১৫

অনেক নাটকের পর গেল বছর অস্ট্রেলিয়া দল এসেছিল বাংলাদেশ সফরে। কিন্তু মাত্র দুটি টেস্ট খেলেই ফিরে যায় তারা। এরপর কথা ছিল বাংলাদেশ দল যাবে অস্ট্রেলিয়াতে একটি পূর্ণাঙ্গ সফরে। এ বছর আগস্টে দুই টেস্ট ও ৩ ওয়ানডের একটি দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু বছরের শুরুতেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) পক্ষ থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি)কে জানানো হয় টাইগারদের আতিথেয়তা দিতে তারা অপারগ। অবশ্য এ নিয়ে বিসিবির পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে। সফরটি আয়োজনের জন্য নানা প্রস্তাবও পাঠানো হয়েছে। এমনকি  টেস্টের পরিবর্তে ওয়ানডে সিরিজ আয়োজনের প্রস্তাবও দেয়া হয় বলে জানা গেছে। কিন্তু মন গলেনি তাদের। সহসা যে অস্ট্রেলিয়া সফরে যাওয়া হচ্ছে না বাংলাদেশ দলের তা অনেকটাই স্পষ্ট বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খানের কথাতে। গতকাল তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘এ সময় ওরা খেলবে না। এটা অনেক আগেই ওরা জানিয়ে দিয়েছে। এ বছর সম্ভাবনা খুবই কম। শিডিউলটা ওরা পরের বছর জানাবে।’

বাংলাদেশ দল ২০০৩-এ অস্ট্রেলিয়া  সফরে যায়। তার তিন বছর পর অস্ট্রেলিয়া দলও প্রথম দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলতে এসেছিল। এরপর শুরু হয় তাদের নাটক। বিশেষ করে  ২০১১ তে সফরে এসে খেলে গেছে মাত্র ৩ ওয়ানডে। সেই সফরে ২ টেস্টের সিরিজ খেলার কথা থাকলেও তা না খেলেই চলে যায়। এরপর ২০১৫-তে নিরাপত্তার অজুহাতে ফের সফর বাতিল করে। সর্বশেষ ২০১৭-তে এসে দুই ম্যাচের টেস্টে একটিতে হেরে আরেকটি জয় নিয়ে দেশ ছাড়ে। বাংলাদেশ দল শেষ অস্ট্রেলিয়া সফরে যায় ২০০৮ সালে। সেই সিরিজে শুধু ওয়ানডেই খেলেছিল। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে বাংলাদেশ দলের শেষ পূর্ণাঙ্গ দ্বিপক্ষীয় সিরিজ সেই ২০০৩-এ। আকরাম খান বলেন, ‘বাংলাদেশ দল এ বছর অনেক ব্যস্ত সময় কাটাবে। জুনে আফগানিস্তান সিরিজ, জুলাইয়ে বাংলাদেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজে যাবে, সেখান থেকে ফ্লোরিডায় যাবে টি-টোয়েন্টি খেলতে। এরপর সেপ্টেম্বরে দুবাইয়ে এশিয়া কাপ, ফিরেই বিপিএল খেলবে। বিপিএলের পর বাংলাদেশ সফরে আসবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও জিম্বাবুয়ে।’ এ বছর অস্ট্রেলিয়া আগস্ট-সেপ্টেম্বরে সিরিজ খেলতে রাজি না হলে টাইগারদেরও সময় নেই।

এছাড়াও জুনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ খেলার কথা থাকলেও তা নিয়ে রয়েছে ধোঁয়াশা। কোন ফরমেটে খেলা হবে বা কবে তা মাঠে গড়াবে তা নিয়ে তিনি পরিষ্কার কোনো ধারণা দিতে পারেননি। প্রাথমিক আলোচনায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি ভারতের নয়ডাতে হওয়ায় কথা থাকলেও ভেন্যু বদলে বিসিসিআইকে ব্যাঙ্গালুরু কিংবা কলকাতায় আয়োজনের অনুরোধ করেছে বিসিবি। তবে এ বিষয়ে কিছুই জানেন না আকরাম খান। তিনি বলেন, ‘এখনও কথাবার্তা চলছে ওয়ানডে খেলবো নাকি টি-টোয়েন্টি খেলবো। দিন তারিখ ঠিক হয়নি। সিরিজটি দেরাদুনে হবে বলেও জানা গেছে। মূলত জঙ্গি হামলার ভয়ে আফগানিস্তানে কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ আয়োজন সম্ভব নয়। যে কারণে আফগানিস্তান হোম ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার করে ভারতের নয়ডাকে। এছাড়াও আফগানদের অন্য কোনো ভেন্যুতে খেলার সুযোগ ভারত দিবে কিনা তা নিয়েও রয়েছে যথেষ্ট সন্দেহ।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর