× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা রম্য অদম্য
ঢাকা, ২০ অক্টোবর ২০১৮, শনিবার

বরিশালে মাদ্রাসা শিক্ষককে লাঞ্ছনার অভিযোগে আটক ২

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১৪ মে ২০১৮, সোমবার, ৪:১১

বরিশালের বাকেরগঞ্জে কাঠালিয়া ইসলামিয়া দারুসসুন্নাত দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক ও মসজিদের ইমাম মো. আবু হানিফাকে লাঞ্ছনার অভিযোগে দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।
বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) আব্দুল হক বলেন, গত শুক্রবার বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার রঙ্গশ্রী ইউনিয়নে প্রকাশ্যে মাথায় মল ঢেলে দিয়ে লাঞ্ছনা করা হয় মাদ্রাসা শিক্ষক আবু হানিফাকে। সেই দৃশ্য ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় আবু হানিফা ১৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করলে রোববার দিবাগত রাতে বাকেরগঞ্জ থেকে দুজনকে আটক করা হয়। আটকৃতরা হলেন- বাকেরগঞ্জ উপজেলার ১২ নম্বর রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের কাঠালিয়া গ্রামের মৃত মো. হাসেম মুসল্লীর ছেলে মিনজু (৪৫)  এবং অন্যজন বাকেরগঞ্জ পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের নূর মোহাম্মদের ছেলে বাদল (২৫)। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে বাকেরগঞ্জ থানা পুলিশ।
স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কাঠালিয়া গ্রামে দারুল উলুম দীনিয়া আরাবিয়া কমপ্লেক্স ও এতিমখানা নির্মাণের জন্য ২০০৯ সালে জায়গা ক্রয় করা হয়। জামায়াতপন্থী কিছু ব্যক্তি ওই জায়গা দখল করে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার পায়তারা করলে ২০১৪ সালে একটি মামলা হয়। এ অবস্থায় চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি অ্যাডভোকেট এইচ এম মজিবুর রহমান কাঠালিয়া ইসলামিয়া দারুচ্ছুন্নাত দাখিল মাদ্রাসায় কমিটির সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন।
লাঞ্ছনাকারীদের সমর্থিত খন্দকার মো. জাহাঙ্গীর আলম এ নির্বাচনে পরাজিত হয়। এসব কারণে ক্ষিপ্ত হয়ে লাঞ্ছনাকারীরা বিভিন্ন সময়ে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। চাঁদা দিতে রাজি না হওয়ায় তারা আবু হানিফকে নানান ধরনের হুমকি ও মাদ্রাসা থেকে বিতাড়িত করার চেষ্টা করে।
মামলার এজাহার মতে, ১১ মে সকাল ৭ টায় হাঁটতে বের হলে মামলার নামধারী আসামি ও অজ্ঞাতনামাসহ ১৪-১৫ জন ব্যক্তি বাদীর পথরোধ করে চাঁদার ৫ লাখ টাকা দাবি করে। এ সময় তারা তাকে মারধর করে। একপর্যায়ে মাটির হাড়ির ভেতরে থাকা মানুষের পরিত্যক্ত মল মাথায় ও গায়ে ঢেলে দেয়। এ বিষয়ে রঙ্গশ্রী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বশির উদ্দিন বলেন, মাদ্রাসার কমিটি নিয়ে বিরোধের জের ধরে জামায়াত-শিবিরের লোকজন তার ওপরে এমন অমানবিক ঘটনা ঘটিয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর