ঢাকা, ২৩ জুন ২০১৮, শনিবার

মেসিকে নিয়ে রিভালদোর ভয়

স্পোর্টস ডেস্ক | ৯ জুন ২০১৮, শনিবার, ৯:০৪

ষষ্ঠ বিশ্বকাপ মিশনে নামছে ব্রাজিল। সেলেকাওদের সামনে আর্জেন্টিনাকে বড় হুমকি হিসেবে দেখছেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রিভালদো। যার কারণ লিওনেল মেসি। রিভালদো মনে করেন মেসির অধরা বিশ্বকাপ জয় এবং দিয়েগো ম্যারাডোনার সমতুল্য হওয়ার এটাই শেষ সুযোগ। আগামী ২৪শে জুন ৩১-এ পা রাখবেন মেসি। গত বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনাকে ফাইনালে তুলে শিরোপা ছুঁতে পারেননি। রাশিয়ায় এবার সেই আক্ষেপ ঘোঁচানোর চ্যালেঞ্জ। ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনার হয়ে সম্ভাব্য সব সাফল্য পেয়েছেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর (বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার) জয়ী লিওনেল মেসি। কিন্তু আন্তর্জাতিক আসরে চারটি ফাইনাল (তিনটি কোপা আমেরিকা) খেলেও হতাশা নিয়ে মাঠ ছাড়েন প্রতিবারই। আলবিসেলেস্তেদের বয়সভিত্তিক দলের হয়ে অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্বকাপ ও অলিম্পিক জেতেন মেসি। জাতীয় দলের জার্সিতে প্রথম ট্রফি জিততে মেসি কতটা মরিয়া তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। মেসি নিজেও বলেছেন আর্জেন্টিনা দলে তার প্রজন্মের বিশ্বকাপ জয়ের এটাই শেষ সুযোগ। ২০০২ বিশ্বকাপ জয়ী ও সাবেক বার্সা তারকা রিভালদো বলেন, ‘আমি মনে করি এটাই মেসির শেষ বিশ্বকাপ। আর্জেন্টিনা তার মতো খেলোয়াড় না পেলে হয়তো পরের বিশ্বকাপেও খেলবে মেসি। তখন তার বয়স হবে ৩৫। আমার বিশ্বাস আর্জেন্টিনাকে এবার শিরোপা এনে দিতে নিজের সেরাটা উজাড় করে দেবে মেসি। সে একজন অসাধারণ খেলোয়াড়। কিন্তু দেশের হয়ে গুরুত্বপূর্ণ শিরোপা না জেতায় তার ওপর অনেকেই আস্থা রাখে না। এ কারণেই ম্যারাডোনা এখনো আর্জেন্টিনার ফুটবল ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়। কারণ সে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। মেসির ওপর এই চাপটা রয়েছে। বার্সেলোনায় তার অসাধারণ সব অর্জন। দেশের হয়ে একটি শিরোপা তাই খুবই গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বার্সার মতো আর্জেন্টিনার ইতিহাসের অংশ হতে বিশ্বকাপের গুরুত্ব মেসি নিজেও জানে। চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফিরলে তার প্রতি আর্জেন্টিনার মানুষের শ্রদ্ধাবোধ আরো বেড়ে যাবে। বিশ্বকাপ ট্রফি উঁচিয়ে ধরার স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে মেসি সর্বোচ্চ লড়াই করবে।’ নিজ দেশ ব্রাজিলের পাশাপাশি আর্জেন্টিনা ছাড়াও ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানি, ইংল্যান্ডকে ফেভারিট তালিকায় রাখছেন রিভালদো। ব্রাজিলের ভরসার প্রতীক নেইমারের উজ্জ্বল সম্ভাবনা দেখছেন সাবেক এই অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার। বিশ্বকাপে নেইমারের ওপর চাপ ব্রাজিলের জন্য ভালো কিছু বয়ে আনবে বলে বিশ্বাস রিভালদোর। তার চোখে বিশ্বকাপ মিশনে ব্রাজিলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেয়ার সামর্থ্য রাখেন নেইমার। রিভালদো বলেন, ‘নেইমারের জন্য চাপ ইতিবাচক হবে। গোটা বিশ্বের তার ওপর চোখ থাকবে। তবে দল হিসেবে ভালো খেলা ছাড়া ভালো ফল আসবে না। দলের সবাই সাপোর্ট দিলেই নেইমার তার স্বাভাবিক খেলা উপভোগ করতে পারবে। নেইমারের বয়স এখন ২৬। এই বয়সে সে খারাপ খেলতে পারে না। সমর্থকদের সমর্থনও একটা বড় ব্যাপার। নেইমারের প্রতি আমার পূর্ণ আস্থা রয়েছে। আমার বিশ্বাস সে খুবই ভালো খেলবে।’ মস্কোতে আগামী ১৬ই জুন আইসল্যান্ড ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু করবে আর্জেন্টিনা। পরদিন সুইজারল্যান্ডের বিপক্ষে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে ব্রাজিল। ‘ডি’ গ্রুপে আর্জেন্টিনার অপর দুই প্রতিপক্ষ ক্রোয়েশিয়া ও নাইজেরিয়া। আর ‘ই’ গ্রুপে ব্রাজিল বাকি দুই ম্যাচ খেলবে কোস্টারিকা ও সার্বিয়ার বিপক্ষে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।