× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ১৫ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার

‘রমজানে প্রস্তুতি নেয়া সত্যিই কঠিন’

ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক | ১০ জুন ২০১৮, রবিবার, ৯:৪৫

বিশ্বকাপের আগে রোজা রেখে অনুশীলন করাটা কঠিন বলে মনে করেন তিউনেশিয়ার মিডফিল্ডার ওহাব খাজারি। গতকাল এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, রোজা রেখে খেলা বা অনুশীলন করা সত্যিই কঠিন। এ সময় আমরা কোনো কিছু পান করতে অথবা খেতে পারি না। রোজা রেখে অনুশীলনে নিজেদের মনের মতো প্রস্তুত করা অনেক কঠিন ব্যাপার। এবারের বিশ্বকাপে ‘জি’ গ্রুপে তিউনেশিয়ার প্রতিপক্ষ বেলজিয়াম, ইংল্যান্ড ও প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপে খেলতে আসা পানামা। বিশ্বকাপের আগে স্পেনের বিপক্ষে নিজেদের শেষ প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে তিউনেশিয়া। এবারের আসরে পরবর্তী রাউন্ডে খেলা তিউনেশিয়ার জন্য অনেকটা কঠিন হবে বলে মনে করেন ২৭ বছর বয়সী খাজারি। তিনি বলেন, আমরা জানি যে, আমরা কঠিন এক গ্রুপে পড়েছি।
যেখানে ইংল্যান্ড ও বেলজিয়ামের মতো শক্তিশালী দল রয়েছে। আমরা এও জানি গ্রুপের সেরা দলগুলোই পরবর্তী রাউন্ডে খেলবে। কিন্তু আমরাও ভালো দল। আর যে দল ভালো খেলবে তারাই পরবর্তী রাউন্ডে খেলবে। মাঠে আমরা নিজেদের সেরাটা দিয়ে খেলার চেষ্টা করবো। আমরা দলগতভাবে সবকিছু অর্জন করতে চাই এবং আমরা আমাদের সেই লক্ষ্য ঠিক করে রেখেছি। আমরা আসরের প্রত্যেকটা ম্যাচ জিততে চাই। সবাই জানে এটা আমাদের জন্য খুবই কঠিন কাজ। কিন্তু আমরা সে চেষ্টা করবো। আর আমি মনে করি দলের প্রত্যেক খেলোয়াড়দের ঐ ধরনের মানসিকতা রয়েছে। আগামী ১৯শে জুন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে তিউনেশিয়া। এ নিয়ে পঞ্চমবার বিশ্বকাপে অংশ নিচ্ছে তারা। ১৯৭৮’র আর্জেন্টিনা বিশ্বকাপে সর্বপ্রথম অংশ নেয় তিউনেশিয়া। ঐ আসরে গ্রুপ-পর্বেই বিদায় নেয় আফ্রিকার এ দেশটি। এর পরে ১৯৯৮, ২০০২ ও ২০০৬ বিশ্বকাপে অংশ নিলে কোনোবারই গ্রুপ-পর্বের বাধা উৎরাতে পারেনি তিউনেশিয়া। ২০১০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপে জায়গা করে নিতে ব্যর্থ হয় তারা।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর