× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ১৭ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার

আজ সেই ঐতিহাসিক ক্ষণ

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার, ১০:০১

বিশ্ব কূটনীতির ইতিহাসে এক নতুন অধ্যায়ের জন্ম হচ্ছে আজ। যুদ্ধ এড়িয়ে কূটনীতিকে প্রাধান্য দিয়ে এক টেবিলে মুখোমুখি আলোচনায় বসছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। সিঙ্গাপুরের সান্তোসায় এ বৈঠকের দিকে তাকিয়ে সারা বিশ্ব। উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় মিডিয়া এ  বৈঠককে একটি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া দেশকে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে নতুন বন্ধুত্ব স্থাপনের সম্ভাবনা হিসেবে মূল্যায়ন করেছে। দশকের পর দশক ধরে এ দুটি দেশের মধ্যে তীব্র বিরোধিতা। যুদ্ধং দেহী মনোভাব একের প্রতি অন্যের। সেই মনোভাব থেকে তারা সরে এসেছে। আজকের ঐতিহাসিক বৈঠকে যদি ইতিবাচক কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেন দু’নেতা তা হবে যেমন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের জন্য, তেমনি কিম জং উনের জন্য রাজনৈতিক স্বস্তির।
তারা বুক ফুলিয়ে বলতে পারবেন শত্রুকে বশে এনেছেন। যুদ্ধ নয়, জয় হয়েছে কূটনীতির। বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে নানা বিতর্ক, বিরোধের মধ্য দিয়ে অগ্রসর হচ্ছেন ট্রাম্প। সেক্ষেত্রে যদি উত্তর কোরিয়াকে বশে আনতে পারেন, একগুঁয়ে কিম জং উনকে পারমাণবিক অস্ত্র ত্যাগে রাজি করাতে পারেন তাহলে তা হবে তার বিরাট এক সাফল্য। রাজনৈতিক অনেক বিতর্ক ধামাচাপা পড়ে যেতে পারে তার নিচে। ইতিমধ্যে আজকের বহুল প্রতীক্ষিত বৈঠক নিয়ে স্বস্তি প্রকাশ করেছেন ট্রাম্প। আজকের বৈঠককে সামনে রেখে রোববারই দু’নেতা পৌঁছে যান সিঙ্গাপুরে। গতকাল প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একটি টুইট করেছেন। তাতে বলেছেন, কিম জংয়ের সঙ্গে সামিটকে সামনে রেখে ‘বাতাসে উন্মাদনা’ ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন কিমের সঙ্গে আলোচনা হলো একটি প্রক্রিয়ার সূচনা। এ প্রক্রিয়াকে কিম জং উনের পারমাণবিক অস্ত্র ত্যাগের ক্ষেত্র হিসেবে দেখছেন তিনি। তবে এক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়া সব সময়ই অস্পষ্টতা প্রদর্শন করেছে। ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, কোরিয়ান উপদ্বীপ অঞ্চলে পুরোপুরি, যাচাইযোগ্য ও ফেরত আসা যায় না এমন পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত অবস্থান থেকে সরে আসেনি যুক্তরাষ্ট্র। সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণণ রোববার রাতে আলাদাভাবে সাক্ষাৎ করেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জংয়ের সঙ্গে। তিনি বলেছেন, বৈঠকের আগে দু’নেতাই অত্যন্ত আস্থাশীল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর