× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার

খালেদাকে সিএমএইচে নেয়ার প্রস্তাব স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার, ৩:২২

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়ার প্রস্তাব তোলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ প্রস্তাবের বিষয়ে জানান তিনি। এসময় মন্ত্রী বলেন,  তিনি যদি সিএমএইচ-এ যেতে চান, আমরা সেখান থেকেও তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করিয়ে দিতে পারি। আমরা তার চিকিৎসার জন্য সরকারিভাবে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা নিয়েছি। এর আগে কারা কর্তৃপক্ষ খালেদা জিয়াকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেয়ার জন্য প্রস্তুতি নিলেও তার আপত্তির কারণে সেখানে নেয়া সম্ভব হয়নি। পরে খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসার নেয়ার অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন জানানো হয়। চিকিৎসার খরচ পরিবার থেকেও বহন করা হবে বলেও আবেদনে উল্লেখ করা হয়। এর পরপরই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিএমএইচ-এ খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা করানোর বিষয়ে প্রস্তাব দেয়ার কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, প্রাইভেট হাসপাতালটির চেয়ে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও সিএমএইচ অনেক সমৃদ্ধ। সেখানে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারও রয়েছেন। তাছাড়া সিএমএইচ অনেক ক্রাইসিস মোমেন্টে ভূমিকা রেখেছে। সেই বিবেচনায় আমরা সিএমএইচের প্রস্তাব দেব। যদি এ প্রস্তাবও খালেদা জিয়া ও তার পরিবার প্রত্যাখান করে তাহলে কি হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, তখন ‘সিচ্যুয়েশন বুঝে’ পরবর্তী পদক্ষেপ নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, গত ৮ই ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন খালেদা জিয়া। কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে একবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব বিশ্ববিদ্যালয়ে এনে বিভিন্ন পরীক্ষা করানো হয়। সর্বশেষ গত ৫ই জুন হঠাৎ করে তিনি কারাগারে ‘মাথা ঘুরে’ পড়ে যান। পরে তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা কারাগারে তাকে দেখতে যান। চিকিৎসকরা ধারণা করেন খালেদা জিয়ার ‘মাইল্ড স্ট্রোক’ হয়েছে। তারা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়ার জন্য সুপারিশ করেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Nurul Hoque
১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার, ৪:৫৬

একজন বৃদ্ধা মহিলাকে এত কষ্ট দিয়ে লাভ কি?

ফরিদ আহম্মেদ
১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার, ২:৫৯

ওনাদের পছন্দের হাসপাতালে চিকিৎসা হল সমস্যা কোথায়।

morshed
১২ জুন ২০১৮, মঙ্গলবার, ২:৫৬

৩ বারের প্রধানমন্ত্রীর নিজের পছন্দের ডাক্তার থেকে চিকিৎসা নেওয়ার স্বাধীনতা নাই!

অন্যান্য খবর