× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৩ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার

‘বাজেট বুঝি না কম দামে কি খাইতে পারমু’

বাংলারজমিন

আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধি | ১৩ জুন ২০১৮, বুধবার, ৯:৫৫

আমরা গরিব মানুষ আমাগোর আবার বাজেট কি? আমরা বাজেট দিয়া কি করমু? আমরা বাজেট বুঝি না কম দামে খাইতে চাই। বাজেট প্রতিক্রিয়া কি জানতে চাইলে এভাবেই বললেন আমতলী পৌরশহরের ৬নং ওয়ার্ডের চায়ের দোকানদার কামাল মিয়া (৪৭)। গতকাল দুপুরে আমতলী ডাক বাংলোর সামনে তার সঙ্গে কথা হয়। তার কথ্য মতে সাধারণ মানুষ বাজেট নিয়ে ভাবে না। তারা কোনো রকম ডাল ভাত খেয়ে জীবনযাপন করতে চায়। অভাবের সংসারে বাজেট নিয়ে চিন্তা করার সময় নাই। বাজেট কি? এমন প্রশ্নের জবাবে গৃহিণী শামিমা বেগম (২২) বলেন, বাজেট দিয়া মোরা হরমু কি। মানষের দ্বারে হুনি বাজেট অইলে জিনিসপত্রের দাম বাড়ে।
মিজান নামের একজনের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, তিনি একটি ছোট্ট চাকরি করেন। স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে পৌর এলাকায় বসবাস করেন। ৮ হাজার টাকা বেতন পান তা দিয়ে বাসা ভাড়া ও সংসারের খরচ চালান। কিন্তু জাতীয় বাজেট ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে উপকূলীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্যপণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছেন। বাজেটে দাম বাড়বে এমন অজুহাতে বেশি দামে সিগারেট, বিড়ি, মাছ মাংসসহ বিভিন্ন পণ্য ক্রয় করতে হয়েছে ক্রেতাদের। তাই ব্যবসায়ীদের কাছে অনেকটা জিম্মি হয়ে পড়েছেন সাধারণ মানুষ। এমনটাই জানিয়েছেন অনেকে। আমতলী নতুন বাজারের চা ব্যবসায়ী মো. সজিব বলেন, বাজেট এলেই পণ্যের দাম বাড়িয়া যায়, চা-পাতাসহ বিভিন্ন পণ্যের দাম বেড়ে যায়। তবে তিনি বেশি দামে বিক্রি করতে পারছেন না। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, বাজেট মানেই গরিবের পেটে লাথি মারা। বাজেট ঘোষণার পর উপকূলের গরিব খেটে খাওয়া মানুষরা বলেছেন, বাজেট কি, মোরা কি দিনে তিন বার ভাত খাইতে পারমু?
এমনই কথা বললেন, আমতলী পৌর শহরের খুদে দোকানদার মাসুম মিয়া। তবে সরকার জনবান্ধব বলে জনতার কথা চিন্তা করেই এ বাজেট ঘোষণা করেছেন এমনটাই বললেন, আমতলী পৌরসভার মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. মতিয়ার রহমান। বাজেট বাস্তবায়ন হবে বলে তিনি আশাবাদী। তিনি উপমায় আরো বলেন, মানুষ এখন কর দিচ্ছে অপরদিকে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা সোচ্চার রাজস্ব আদায়ে। সবমিলিয়ে বাস্তবায়িত হবে এবারের বাজেট।
আমতলী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ জিএম দেলোয়ার হোসেন বলেন, সরকার একটি যুগ উপযোগী বাজেট প্রণয়ন করেছেন। এ বাজেটের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর