ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৮, সোমবার

রাশিয়ায় ভেঙে যেতে পারে যেসব রেকর্ড

স্পোর্টস ডেস্ক | ১৪ জুন ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১০:৪৭

বিশ্বকাপে ব্রাজিলের টানা ম্যাচ জয়, বিশ্বকাপে ফুটবল গ্রেট দিয়েগো ম্যারাডোনার অধিনায়ক হিসেবে সর্বাধিক গোল ও কলম্বিয়ান গোলরক্ষক ফরিদ মনদ্রাগোনের বেশি বয়সে খেলার রেকর্ডগুলো ভেঙে যেতে পারে এবারের বিশ্বকাপে। আর নতুন রেকর্ড গড়ার জন্য মাঠে নামবেন ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম, আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি ও উত্তর আমেরিকার দেশ কোস্টারিকাও। এমনই রেকর্ড ভাঙা-গড়ার হাতছানি দিচ্ছে এবারের রাশিয়া বিশ্বকাপ।
১৩৫ : এবারের আসরে উরুগুয়ে ও পর্তুগাল মুখোমুখি হলে নতুন এক রেকর্ড গড়বেন দুই দলের কোচ অস্কার তাবারেস ও ফার্নান্দো সান্তোস। এ ম্যাচের সময় দুই কোচের মিলিত বয়স হবে ১৩৫ বছর ৩ মাস। যা বিশ্বকাপের ইতিহাসে এক ম্যাচে দুই দলের মিলিত সর্বাধিক বয়সের রেকর্ড। এর আগে এ রেকর্ডটি ছিলো গ্রিসের কোচ ওটো রেহাগেল ও নাইজেরিয়ার কোচ লার্স লেগ্যারব্যাকের। ২০১০’র দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বের দুই দলের লড়াইয়ের দিনে তাদের মিলিত বয়স ছিল ১৩৩ বছর ৯ মাস।
৪৫ : উরুগুয়ের বিপক্ষে মিশর মুখোমুখি হবে আগামী ১৫ই জুন। ঐ সময় মিশরী গোলরক্ষক ইসাম আল-হাদারির বয়স হবে ৪৫ বছর ৫ মাস। এ ম্যাচ ছাড়াও রাশিয়ায় অন্য যে কোনো ম্যাচে মিশরের জার্সি গায়ে মাঠে নামলেও বিশ্বকাপ ইতিহাসের সবচেয়ে বয়স্ক খেলোয়াড়ের রেকর্ড গড়বেন আল হাদারি। এর আগে এ রেকর্ডটি ছিল কলম্বিয়ার গোলরক্ষক ফরিদ মনদ্রাগোনকের। তিনি বিশ্বকাপে অংশ নিয়েছিলেন ৪৩ বছর ৩ দিন বয়সে।
১৩ : বিশ্বকাপে টানা সবচেয়ে বেশি ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ব্রাজিলের। ১৯৫৪’র আসরের কোয়ার্টার ফাইনালে হাঙ্গেরির কাছে ৪-২ গোলে হারের পর ১৯৬৬’র বিশ্বকাপে একই দলের কাছে গ্রুপ পর্বে ৩-১ গোলে হেরেছিল তারা। এর মধ্যে টানা ১৩ ম্যাচ অপরাজিত ছিল সেলেকাওরা। এই রেকর্ড ভেঙে দিতে পারে এবার জার্মানি। ২০১০’র সেমিফাইনালে স্পেনের কাছে ১-০ গোলে সর্বশেষ হেরেছিল বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। টানা ৮ ম্যাচ অজেয় থেকে রাশিয়া বিশ্বকাপে পা রাখছে জার্মানরা।
৬ : অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপে সর্বাধিক ৬ গোলের রেকর্ড রয়েছে আর্জেন্টাইন কিংবদন্তি ফুটবলার দিয়েগো ম্যারাডেনার। এবারের আসরে এ রেকর্ড ভাঙতে পারেন আরেক আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসি। বিশ্বকাপে ৪ গোল করেছেন তিনি। বিশ্বকাপ জয়ী ম্যারডোনার রেকর্ড ভাঙতে হলে আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসির দরকার আর ৩ গোল।
৬ : উত্তর আমেরিকা অঞ্চল থেকে বিশ্বকাপে টানা ৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড রয়েছে মেক্সিকোর। ১৯৯৪ ও ১৯৯৮’র বিশ্বকাপে এই রেকর্ড গড়েছিল মেক্সিকানরা। এবার তাদের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে কোস্টারিকা। ২০১৪’র বিশ্বকাপে তাদের পাঁচ ম্যাচের একটিও হারেনি দলটি। এবারের আসরে সার্বিয়ার বিপক্ষে হার এড়ালেই মেক্সিকোকে স্পর্শ করবে কোস্টারিকা। আর ব্রাজিলকে রুখে দিলে এককভাবে রেকর্ড হয়ে যাবে তাদের।
৫ : রাশিয়া বিশ্বকাপে মেক্সিকোর দলে রয়েছেন মিডফিল্ডার রাফায়েল মার্কেজ। আর দলের জার্সি গায়ে মাঠে নামলে তৃতীয় খেলোয়াড় হয়ে ৫টি বিশ্বকাপ খেলার দুর্লভ কীর্তি গড়বেন তিনি। মেক্সিকোর এই অভিজ্ঞ খেলোয়াড় স্পর্শ করবেন স্বদেশি আন্তোনিও কারবাজাল ও জার্মান লিজেন্ড লোথার ম্যাথিউসকে। জিয়ানলুইজি বুফন পাঁচটি বিশ্বকাপে দলের সঙ্গে থাকলেও ১৯৯৮’র আসরে একটি ম্যাচও খেলা হয়নি তার।
৫ : বিশ্বকাপে টানা ৫ ম্যাচে ড্র করার রেকর্ড রয়েছে বেলজিয়ামের। ১৯৯৮ থেকে ২০০২’র আসর পর্যন্ত এ কীর্তি গড়ে তারা। ২০১৪’র বিশ্বকাপে কোস্টারিকা তাদের শেষ তিন ম্যাচই ড্র করেছিল। নতুন এ রেকর্ড গড়তে ব্রাজিল, সুইজারল্যান্ড ও সার্বিয়ার বিপক্ষে ড্র করতে হবে তাদের।
৪ : অস্ট্রেলিয়ার টিম কাহিল, মেক্সিকোর রাফায়েল মার্কেজ ও পর্তুগালের ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো এবারের বিশ্বকাপে গোল করলেই অনন্য এক মর্যাদা পাবেন। টানা ৪ বিশ্বকাপে গোল হবে তাদের। তিনটির বেশি আসরে গোল করার কীর্তি রয়েছে জার্মানির উবে সিলার, ব্রাজিলের পেলে ও জার্মানির মিরোস্লাভ ক্লোসার।
৩ : দিদিয়ের দেশম ফ্রান্সকে বিশ্বকাপ জেতাতে পারলে অনন্য এক রেকর্ড গড়বেন। কোচ ও খেলোয়াড় হিসেবে শিরোপা জেতা তৃতীয় ব্যক্তি হবেন তিনি। ১৯৯৮’র ফরাসিদের বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য ছিলেন দেশম। এর আগে দেশের হয়ে কোচ ও খেলোয়াড় হিসেবে বিশ্বকাপ জয়ের কৃতিত্ব রয়েছে ব্রাজিলের মারিও জাগালো ও জার্মানির ফ্রাঞ্জ বেকেনবাওয়ারের।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।