ঢাকা, ২৩ জুলাই ২০১৮, সোমবার

আলোর পথে রাশিয়া

স্পোর্টস রিপোর্টার, নিজনি নভোগরদ (রাশিয়া) থেকে | ২২ জুন ২০১৮, শুক্রবার, ১০:০০

রাজনৈতিক টেনশন ছিল। দেশের মধ্যে সরকার বিরোধিতা বেশ ভালো রকম মাথাচাড়া দিয়ে উঠছিলো। বিশ্বকাপের বাড়তি খরচ নিয়েও চলছিল আলোচনা সমালোচনা। সেসব বাধা পেরিয়ে রাশিয়া কার্নিভালে মেতেছে রাশিয়া। সস্তার বিয়ার, রোদ ঝলমল আবহাওয়া, পরিবহনের সুব্যবস্থা সব মিলিয়ে সবচেয়ে বড় ফুটবলের আলোয় আলোকিত রাশিয়া।  প্রথম দল হিসেবে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে রাশিয়া। দেশ জুড়ে তাই খুশির হাওয়া।

পাকিস্তানের বলে খুশি খেলোয়াড়রা

পাকিস্তানে তৈরি টেলস্টার বলটি নিয়ে প্লেয়াররা যারপরনাই খুশি। বল স্ট্রাইকারদের পায়ে পড়লে গোল হচ্ছে। ফ্রি কিক-এ সুইং দেখার মতো। এরইমধ্যে ২০ ম্যাচে ৪৫ গোল হয়েছে। গোলরক্ষকরা খাবি খাচ্ছে। প্রাণবন্ত ম্যাচ দেখে বাড়ি

ফিরছেন দর্শকরা বড়রা হোঁচট খাচ্ছে
কেউ ভাবতে পারেনি জার্মানির মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের হারিয়ে দিতে পারে মেক্সিকোর মতো দল। তিন লাখ লোকের দেশ আইসল্যান্ড বা সুইজারল্যান্ডের মতো দল যে মেসি বা নেইমারের দেশকে বেগ দিতে পারে একথা কেউ ঘুণাক্ষরেও ভাবতে পারেনি। তাই কিন্তু হচ্ছে। জাপান-ইরানও জয় পাচ্ছে তুলনামূলক শক্তিশালী দলের বিপক্ষে।

আসল দেশপ্রেমিক

প্রতিটি বিশ্বকাপেই দর্শকরা আলোড়ন তোলে। এবারো তার ব্যতিক্রম হয়নি। ভিটেমাটি বিক্রি করে অর্থের জোগান দিয়েছেন। এরপর ৬৪ ঘণ্টা টানা যাত্রা করে বিশ্বকাপের মাঠে এসেছেন গুইলিমোর এসপিনোজা নামক পেরুর এক ফুটবল সমর্থক। মস্কোতে পাড়া দিয়েই তিনি চলে গেছেন সারাঙ্ক। সেখান থেকে গুইলিমোর এখন একতেনবার্গে। যেখানে ফ্রান্সের বিপক্ষে মাঠে নামছে পেরু।

লুকা মদ্রিচের বন্ধু মেসি ভক্ত

নিজনি নভোগরদ স্টেডিয়ামে গতকাল মহাগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে মুখোমুখি হয় আর্জেন্টিনা ও ক্রোয়েশিয়া। ম্যাচটি দেখতে ইউক্রেন থেকে নিজনি পৌঁছেন ক্রোয়েশিয়ান মিডফিল্ডার লুকা মদ্রিচের বাল্য বন্ধু জাদার মরিচ। ক্রোয়েশিয়ান হলেও মেসিকে সমর্থন করেন মরিচ। মেসির হাতে বিশ্বকাপও দেখতে চান মদ্রিচের এই বন্ধু।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।