× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার

সুইডেনকে আর ছোট করে দেখবে না ইংল্যান্ড

ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক | ৫ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১০:০৫

সুইডেনের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ফুটবল পরিসংখ্যান উজ্জ্বল নয়। আর ইংল্যান্ড কোচ গ্যারেথ সাউথগেট মনে করেন, অতীতে সুইডিশদের ছোট করে দেখার কারণেই সাফল্য বিমুখ থেকেছে ইংলিশরা। তবে এবার ভুল করবেন না তারা। বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো টাইব্রেকারে জয় পেলো ইংল্যান্ড। মঙ্গলবার শেষ ষোল’র ম্যাচে কলম্বিয়ার বিপক্ষে টাইব্রেকারে ৪-৩ গোলে জয় কুড়ায় তারা। এর আগে বিশ্বকাপে ৩ বার টাইব্রেকারে হার দেখে ইংলিশরা। তবে মঙ্গলবার কলম্বিয়ার বিপক্ষে জয়ের ব্যাপারে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী ছিলেন বলে জানান ইংল্যান্ডের কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। এদিন ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, আমি এ ম্যাচে জয়ের ব্যাপারে যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী ছিলাম।
আর আমার এক বারের জন্যেও মনে হয়নি যে, আমরা খালি হাতে বাড়ি যাবো। আমরা আমাদের নিজেদের গল্প আর ইতিহাস সৃষ্টির জন্য নিজেদের সেরাটা উজাড় করে দিয়েছি। আমরা কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে চেয়েছি। বাড়ি যেতে চাইনি। পুরো ম্যাচ জুড়েই আমরা খুব ভালো খেলেছি। শেষ বাঁশি বাজার আগ পর্যন্ত ছেলেরা অবিশ্বাস্য ধৈর্য্য দেখিয়েছে। এ ম্যাচ জয়টা আমাদের জন্য অনেক স্পেশাল। কিন্তু আমি এখন সুইডেনের ম্যাচ নিয়ে ভাবতে চাই। তাদের হারিয়ে সেমিফাইনালে খেলতে চাই আমরা। সুইডেনের বিপক্ষে আমাদের রেকর্ড ভালো নয়। অতীতে তাদের ছোট করে দেখেছি আমরা। সুইডেনের সঙ্গে ২৪ সাক্ষাতে ৮ জয়ের বিপরীতে ৭ বার হার দেখেছে ইংলিশরা। আর বিশ্বকাপে চার সাক্ষাতে এখনো জয়ের দেখা মেলেনি ইংলিশদের। সর্বশেষ দ্বৈরথে সুইডিশদের বিপক্ষে ৪-২ গোলে হারের স্মৃতি ইংল্যান্ডের। সাউথগেট বলেন, দলের খেলোয়াড়রা প্রত্যেক ম্যাচে উন্নতি করছে। একটা দল হিসেবে খেলতে চেয়েছি আমরা। যেটা সবাই মাঠে করে দেখিয়েছে। আর ম্যাচ বাই ম্যাচ উন্নতি করছি আমরা। দলের খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সে আমি সন্তুষ্ট। এদিন নির্ধারিত সময়ের খেলা ১-১ গোলে শেষ হলে ম্যাচ পেনাল্টি শুটআউটে গড়ায়। অন্যদিকে এমন জয় দলের খেলোয়াড়দের মানসিকতার উন্নতি হিসেবেই দেখছেন ইংলিশ অধিনায়ক হ্যারি কেইন। ম্যাচ শেষে তিনি বলেন, এই জয়ের ফলে দলের খেলোয়াড়রা আরো আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছে। এমন জয়ে আমি ভীষণ গর্বিত। নির্ধারিত সময়ের শেষদিকে গোল হজম করাটা সত্যিই দুর্ভাগ্যের। কিন্তু যেভাবে টাইব্রেকারে জয় পেয়েছি সেটি আমাদের আরো আত্মবিশ্বাসী করে তুলছে। এই জয় আমাদের একতা আর মানসিক শক্তির প্রতিফলন। এ ম্যাচে জয়টা আমাদের দলের অনেক কিছু এনে দিয়েছে। কারণ আমরা সবাই জানতাম পেনাল্টিতে ইংল্যান্ডের ইতিহাস ভালো নয়। কিন্তু এবার তেমন কিছু হয়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর