ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার

ইংল্যান্ডের আছেন একজন ‘সুপারহিরো’

স্পোর্টস ডেস্ক | ৬ জুলাই ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৫৬

একটি পেনাল্টি শট ঠেকিয়ে বড় খবরের শিরোনাম জর্ডান পিকফোর্ড। তিনি খবরের শিরোনাম হয়েছেন আগেও। সর্বকালের সবচেয়ে দামি বৃটিশ গোলরক্ষক কিন্তু পিকফোর্ডই। সে কথায় পরে আসি। ইংল্যান্ডকে রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে তোলার নায়ক তো তিনিই। শেষ ষোলো রাউন্ডে কলম্বিয়ার বিপক্ষে টাইব্রেকারে ইংল্যান্ডকে জয় এনে দেয়ার পর পিকফোর্ডকে নিয়ে মেতেছে বিশ্ব মিডিয়া। মঙ্গলবার কলম্বিয়ার বিপক্ষে টাইব্রেকারে কার্লোস বাকার পঞ্চম শটটি ফিরিয়ে ইংলিশদের উৎসবের উপলক্ষ এনে দেন ২৪ বছর বয়সী এই গোলরক্ষক। আর ইনজুরি সময়ে টুর্নামেন্টের অন্যতম দর্শনীয় সেভ প্রদর্শন করেন তিনি। ডি-বক্সের বেশ বাইরে থেকে নেয়া কলম্বিয়ান মিডফিল্ডার মাতিয়াস উরিবের দুর্দান্ত শট বামদিকে লাফিয়ে উঠে এক হাতে প্রতিহত করেন পিকফোর্ড। পরে কর্নার থেকে ইয়েরে মিনার হেডের গোলে নাটকীয়ভাবে সমতায় ফেরে কলম্বিয়া। পিকফোর্ডের জন্য আগামীকাল আরো বড় চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে। সামারা অ্যারেনায় সেমিফাইনালের লড়াইয়ে সুইডেনকে মোকাবিলা করবে ইংল্যান্ড। খেলা শুরু হবে রাত ৮টায়।
পারফরম্যান্স দিয়েই সমালোচকদের জবাব দেন ৬ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতার পিকফোর্ড। এই ম্যাচের আগে কিছু ইংলিশ সংবাদমাধ্যমে তার সমালোচনা করা হয়। বেলজিয়ামের বিপক্ষে ১-০ গোলে হার নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করে ইংল্যান্ড। ওই ম্যাচে বেলজিয়ান উইঙ্গার আদনান ইয়ানুজাইয়ের শটের নাগাল পাননি পিকফোর্ড। এরপর তাকে ‘খাটো’ বলেও বিদ্রূপ করা হয়। ম্যাচ শেষে ৬ ফুট ৬ ইঞ্চির বেলজিয়ান গোলরক্ষক থিবো কুরতোয়া দাবি করেন, পিকফোর্ডের জায়গায় তিনি থাকলে গোলটি সেভ করতে পারতেন।
কলম্বিয়া ম্যাচের আগে পিকফোর্ডকে ক’জনে চিনতেন! সান্ডারল্যান্ড ক্লাবে বেড়ে ওঠেন তিনি। ২০১১ সালে শৈশবের ক্লাবের সঙ্গে পেশাদার ক্যারিয়ারের চুক্তি সই করেন। পরের বছর থেকে নিচের সারির ক্লাবগুলোতে ধারে (লোন) খেলেন তিনি। ডার্লিংটন, আলফ্রেটন, বার্টন, কার্লাইল, ব্রাডফোর্ড, প্রেস্টন নর্থ ঘুরে গত বছর স্থায়ী চুক্তিতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগের ক্লাব এভারটনে নাম লেখান জর্ডান পিকফোর্ড। ওই দলবদলেই হইচই ফেলে দিয়ে লাইমলাইটে আসেন তিনি। পিকফোর্ডকে আনতে ২৫ মিলিয়ন পাউন্ড গুনতে হয় এভারটনকে। গোলরক্ষকের তালিকায় ইতিহাসের তৃতীয় সর্বোচ্চ ট্রান্সফার ফি এটি। এর মধ্য দিয়ে সর্বকালের সবচেয়ে দামি বৃটিশ গোলরক্ষকের মর্যাদা পান পিকফোর্ড। সবচেয়ে দামি গোলরক্ষক ইতালিয়ান কিংবদন্তি জিয়ানলুইজি বুফন। ২০০১ সালে ইতালিয়ান গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফনকে পারমা থেকে ৫২ মিলিয়ন ইউরোতে দলে ভেড়ায় সিরি আ’ ফুটবল লীগের অপর ক্লাব জুভেন্টাস। গত বছর বেনফিকা থেকে ৪০ মিলিয়ন ইউরোতে ব্রাজিলের এডারসন মোরায়েসকে চুক্তিবদ্ধ করে ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার সিটি।
পিকফোর্ড বীরত্বে টাইব্রেকার অভিশাপ থেকে মুক্তি পায় ইংল্যান্ড। বিশ্বকাপে পেনাল্টি শুটআউটে এই প্রথম জয়ের দেখা পায় ইংল্যান্ড। ইংলিশ ফুটবল ইতিহাসে দ্বিতীয় গোলরক্ষক হিসেবে পেনাল্টি শট ঠেকানোর কৃতিত্ব দেখান পিকফোর্ড। ১৯৯৮ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে টাইব্রেকারে একটি শট প্রতিহত করেন ডেভিড সিম্যান। কিন্তু ওই ম্যাচে জয়বঞ্চিত থাকে ইংল্যান্ড। কলম্বিয়ার বিপক্ষে আরেকটি বড় অর্জন রয়েছে পিকফোর্ডের। ম্যাচের ১২০ মিনিটে ৭,৪৬৮ মিটার কভার করেন তিনি। যেটি চলতি আসরে এক ম্যাচে যেকোনো গোলরক্ষকের সেরা।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।