× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

যেন বিশ্বকাপ থেকে গড়িয়ে বাইরে চলে গেলেন

ফিফা বিশ্বকাপ-২০১৮

মানবজমিন ডেস্ক | ৮ জুলাই ২০১৮, রবিবার, ১০:২৮

বেশি দিন আগের কথা নয়। এই তো মাত্র চার বছর আগে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের সেমি ফাইনাল। সেখানে
জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে শোচনীয়ভাবে পরাজিত হয় ব্রাজিল। আর তার মধ্য দিয়ে ওই সময় তাদের বিদায় ঘটে। সেই অবস্থা থেকে তারা এবার নিজেদের বের করে আনার চেষ্টা করেছিল এবং আশাও ছিল। শক্তিশালী ফেভারিট দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল। কিন্তু হায়! রাশিয়ায় একি ঘটল! এবার সেমি ফাইনাল নয়। কোয়ার্টার ফাইনালেই তারা বেলজিয়ামের মতো একটি দলের কাছে ২-১ গোলে হেরে গাঁট্টিবোচকা বাঁধা শুরু করেছেন।
ম্যাচ রিপোর্টে এমনই মন্তব্য করেছে লন্ডনের অনলাইন দ্য সান। এতে বলা হয়েছে, শুক্রবার দিবাগত রাতের ম্যাচের পর সুপারস্টার নেইমারের চেয়ে সম্ভবত অন্য কেউ অতটা হতাশ বা আপসেট হননি। তিনি তার জাতির প্রত্যাশা, কোটি কোটি ভক্তের ভালোবাসা, আস্থা নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন। তার পায়ে বল যেতেই গ্যালারি যেন লাফিয়ে উঠছিল। তিনি কৌশলও নির্ধারণ করেছিলেন। মাঠের লেফট ফরোয়ার্ড থেকে তিনি যে কৌশলে বলকে প্রতিপক্ষের ডি-বক্সের মাঝে ফেলে দিয়েছেন তা ব্রাজিলের খেলোয়াড়রা কাজে লাগাতে পারেননি। যে সম্ভাবনাগুলো সৃষ্টি হয়েছিল, তাতে নিশ্চিত গোল হয়ে যাওয়ার কথা ছিল ব্রাজিলের পক্ষে। কিন্তু মারসেলোরা তা কোনো কাজে লাগাতে পারেননি। তাই শেষ বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গে এই নেইমার যেন হাঁটুর কাছে ভাজ হয়ে এসেছিলেন। তার চিবুক বেয়ে তখন অশ্রু ঝরছে। নেইমার তখন সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারছিলেন না। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের ক্যাপ্টেন ভিনসেন্ট কোম্পানি তাই এগিয়ে গেলেন। তিনিই নেইমারকে তার পায়ের ওপর দাঁড়াতে সহায়তা করলেন। এটা যেন খেলার একটি উত্তম উদাহরণ। মাঠে যখন সবাই নেইমারকে বা সতীর্থদের সান্ত্বনা দিচ্ছেন তখন কিন্তু সামাজিক মিডিয়াতে ঝড় উঠেছে। সেখানে কিন্তু ব্রাজিলকে সহানুভূতি দেখানো হয়নি। অসংখ্য ভক্ত, প্রতিপক্ষ নেইমারকে নিয়ে কৌতুক করেছেন। মিগুয়েল লায়ুন তাকে ফাউল করার পর নেইমার যে অতিমাত্রায় নাটকীয় রি-অ্যাকশন দেখিয়েছেন তা নিয়ে মস্করা করা হয়েছে। তাকে দেখানো হয়েছে মৃতপ্রায় মাছ ভেসে আসার মতো করে। পরিসংখ্যান বলছে, এবার বিশ্বকাপে তিনি রাশিয়ায় খেলতে গিয়ে ফাউল করার ফলে প্রায় ১৪ মিনিট মাটিতে পড়ে থেকেছেন। এটাকে অতি মাত্রায় অভিনয় বলে অনেকে মন্তব্য করেছেন। তাকে নিয়ে জিআইএফ কার্টুন বানানো হয়েছে। তাতে দেখানো হয়েছে, তিনি ব্যথায় নিজে পড়ে যাওয়ার আগে টিম-মেটদের সঙ্গে হাই-ফাইভ দিচ্ছেন। অ্যালেক্স বেনিটো ১৯৯১ নামের একজন নেইমারের একটি কার্টুন পোস্ট করেছেন। তাতে তাকে দেখানো হয়েছে বিমানবন্দরের কনভেয়ার বেল্টের ওপর দিয়ে গড়িয়ে যাচ্ছেন। সঙ্গে লেখা ‘ব্রাজিল এবং নেইমার দেশে ফিরছেন’। ইনসোনিয়াসকারভাও একটি ছবিতে দেখিয়েছেন সমুদ্রের ঢেউয়ের ভিতর থেকে উঠে আসছেন নেইমার। তাতে লেখা, চমৎকার একটি ছুটি কাটান নেইমার। তবে ঠাণ্ডা পানির বিষয়ে সতর্ক থাকবেন। আন্দ্রে ওউর নামে একজন নেইমারের চারটি ছবি যুক্ত করেছেন। তাতে দেখানো হয়েছে, তিনি ব্যথায় পড়ে আছেন। ক্যাপশনে লেখা, নেইমারের বিশ্বকাপের সারসংক্ষেপ। ব্যাডগালমাডি নামে একজন নেইমারের একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। তাতে দেখানো হয়েছে, ব্যারেলের মতো তিনি গড়িয়ে যাচ্ছেন। ক্যাপশনে লেখা, বিশ্বকাপ থেকে কিভাবে গড়িয়ে বাইরে চলে গেলেন নেইমার। টিমি ইজ ডা বেস নামে একজন একজন মানুষের জিআইএফ পোস্ট করেছেন। তাতে লেখা, আপনি কখন বুঝতে পেরেছেন যে, নেইমার দেশে চলে যাচ্ছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর