ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার

লড়াইটা দুই কোচেরও

স্পোর্টস ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার, ১০:১২

রবার্তো মার্টিনেজ। রাশিয়া বিশ্বকাপের অন্যতম আলোচিত কোচ তিনি। এ স্প্যানিয়ার্ড কোচের অধীনে বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখছে বেলজিয়ামের সোনালী প্রজন্ম। মার্টিনেজের কৌশলের কাছেই কোয়ার্টার ফাইনালে বিদায় নেয় নেইমারের ব্রাজিল। এবার আরো বড় অগ্নিপরীক্ষার সামনে দাঁড়িয়ে বেলজিয়াম কোচ। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে মার্র্টিনেজের বাধা দিদিয়ের দেশমের ফ্রান্স। লড়াইটা এই দুই কোচের মধ্যেও। আজ সেইন্ট পিটার্সবার্গ স্টেডিয়ামে সেমিফাইনালের হাইভোল্টেজ ম্যাচে লড়বে বেলজিয়াম ও ফ্রান্স। খেলা শুরু রাত ১২টায়। কোচিং অভিজ্ঞতায় টাক মাথার মার্টিনেজের চেয়ে অনেক এগিয়ে দেশম। আন্তর্জাতিক ম্যাচে এবারই প্রথম মুখোমুখি হচ্ছেন দু’জন। মাঠের কৌশলে শেষ হাসি কে হাসবেন সেটিই এখন দেখার অপেক্ষা। দুই বছর ধরে বেলজিয়ামের ডাগআউট সামলাচ্ছেন ৪৪ বছর বয়সী মার্টিনেজ। বিশ্বকাপ দিয়েই নিজের কোচিং দক্ষতার জানান দেন তিনি। এবার ফ্রান্স ও বেলজিয়ামের কাছে ল্যাটিন আমেরিকার তিন ফুটবল শক্তি বিদায় নেয়। লিওনেল মেসিকে বোতলবন্দি করে দ্বিতীয় রাউন্ডে ৪-৩ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ফ্রান্স। কোয়ার্টার ফাইনালে উরুগুয়েকে সহজেই ২-০ গোলে হারায় দেশমের শিষ্যরা।
২০১২ সালে জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব নেন ৯৮’র বিশ্বকাপ জয়ী ফ্রেঞ্চ অধিনায়ক দেশম। ফ্রান্সকে ঘরের মাটিতে ২০১৬ ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের (ইউরো) ফাইনালে নিয়ে যান তিনি। অতিরিক্ত সময়ের একমাত্র গোলে স্বাগতিকদের হতাশ করে প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফি উদযাপন করে রোনালদোর পর্তুগাল। ২০০১ সালে কোচিং ক্যারিয়ারে পা রাখেন ৪৯ বছর বয়সী দেশম। ফ্রান্সের কোচ হওয়ার আগে মোনাকো, জুভেন্টাস ও অলিম্পিক মার্সেইতে ছিলেন তিনি। কোচ হিসেবে মার্টিনেজের অভিষেক ২০০৭ সালে। সোয়ানসি সিটি, উইগান অ্যাথলেটিক ও এভারটন হয়ে ২০১৬-তে বেলজিয়ামের কোচের দায়িত্ব কাঁধে নেন তিনি।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।