× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২১ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার

ট্রাম্প কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা ট্রাম্পের সাবেক গাড়িচালকের

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার, ১:৫০

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ব্যক্তিগত গাড়ির সাবেক চালক মামলা করেছেন ট্রাম্প কোম্পানির বিরুদ্ধে। তিনি ট্রাম্পের অধীনে ২০ বছরেরও বেশি সময় চালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার অভিযোগ, তাকে হাজার হাজার ঘন্টা ওভার টাইম কাজ করানো হয়েছে। কিন্তু তার পারিশ্রমিক দেয়া হয় নি। এ অভিযোগে তিনি ওই মামলা করেছেন। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ওই চালকের নাম নোয়েল সিনট্রোন (৫৯)। তার স্পষ্ট উচ্চারণ, তাকে দিয়ে ৩৩০০ ঘন্টা ওভারটাইম কাজ করিয়েছে ট্রাম্প অর্গানাইজেশন।
কিন্তু গত ৬ বছর ধরে সেই কষ্টের পারিশ্রমিক দেয়া হয় নি তাকে। তবে ট্রাম্প অর্গানাইজেশন বলছে, সিনট্রোনকে যথাযথভাবে তার পাওনা পরিশোধ করা হয়েছে। কিন্তু সিনট্রোন এখন ওই বিল সহ ক্ষতিপূরণ চাইছেন। তার আইনজীবী বলেছেন এর পরিমাণ দাঁড়াতে পারে ৪ লাখ ডলার। এর মধ্যে রয়েছে ক্ষতিপূরণ, কেন্দ্রীয় ও রাজ্যের শ্রম আইন লঙ্ঘনের কারণে প্রাপ্ত অর্থ।  প্রতি ঘন্টায় তাকে ওভারটাইম বিল দেয়ার কথা ৫৪.০৯ ডলার। এ হিসেবে শুধু ওভার টাইম বিল বাবদই তিনি পান এক লাখ ৭৮ হাজার ডলারের বেশি। এই অর্থ পরিশোধ করা হয় নি। এ অর্থ এরও বেশি হতে পারে। অভিযোগে বলা হয়েছে, এসব অর্থ ইচ্ছাকৃতভাবে পরিশোধ করা হয় নি। তবে এর সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছে ট্রাম্প অর্গানাইজেশন। এর এক মুখপাত্র ইমেইল মারফতে জানিয়েছেন, সিনট্রোনকে সব সময়ই যথাযথভাবে এবং আইন অনুযায়ী তার পাওনা পরিশোধ করা হয়েছে। যখন এসব সত্য বেরিয়ে আসবে তখন আমরা আশা করি আদালতে প্রমাণ হবে যে আমাদেরকে পুরোপুরিভাবে শিকারে পরিণত করা হচ্ছে। ওই মামলায় বিবাদি হিসেবে প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের নাম উল্লেখ করা হয় নি। মামলাটি করা হয়েছে ম্যানহাটানে নিউ ইয়র্ক স্টেট সুপ্রিম কোর্টে। এতে সিনট্রোন বলেছেন, ডনাল্ড ট্রাম্প, তার পরিবারের সদস্যদের ও তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জহন্য তিনি অর্ধ শতাব্দীরও বেশি সময় গাড়ি চালিয়েছেন। সপ্তাহে তা ৫০ থেকে ৫৫ ঘন্টা। এরপর ২০১৬ সালে গাড়ি চালানোর দায়িত্ব নিয়ে  নেয় সিক্রেট সার্ভিস। ফলে এর পরে তাকে ট্রাম্পের নিরাপত্তা কর্মকর্তাদের পদে যোগ দিতে হয়। তিনি বলেছেন, ২০০৬ সালে তার বেতন ছিল ৬৮০০০ ডলার। ২০১০ সালে তা ৭৫০০০ ডলার। বেতন বাড়ানো হলেও তাকে স্বাস্থ্য সুবিধা দেয়া হয় নি। তিনি দাবি করেন, এর ফলে বছরে স্বাস্থ্য বীমা হিসেবে ট্রাম্পের সেভ হয়েছে ১৭ হাজার ৮৬৬ ডলার। সিনট্রোনের আইনজীবী ল্যারি হাটচার বলেছেন, তার মক্কেল এর আগে এ অভিযোগ করেন নি। কারণ, তিনি তার অধিকার সম্পর্কে সচেতন ছিলেন না। তিনি মনে করেছিলেন মামলা করার প্রয়োজন হবে না। ওই মামলাটি হলো: সিনট্রোন বনাম ট্রাম্প অর্গানাইজেশন এলএলসি এট এল, নিউ ইয়র্ক স্টেট সুপ্রিম কোর্ট, নিউ ইয়র্ক কাউন্টি, মামলা নম্বর ৬৫৩৪২৪/২০১৮।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর