ঢাকা, ১৯ জুলাই ২০১৮, বৃহস্পতিবার

ফেটে পড়েছে ফ্রান্স

মানবজমিন ডেস্ক | ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার, ১০:৫৫

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে ডিফেন্ডার উমতিতি বল পাঠিয়ে দিলেন বেলজিয়ামের জালে। অমনি সেইন্ট পিটার্সবুর্গের স্টেডিয়ামে আনন্দে লাফিয়ে উঠলেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। তার সঙ্গে সঙ্গে পুরো ফ্রান্সে নেমে এলো আনন্দের বন্যা। মানুষে মানুষে সয়লাব রাজপথ। পাড়া মহল্লা। সব জায়গা। এমন দৃশ্য বহুদিন দেখেনি ফরাসিরা। যেন এক বিপ্লব ঘটে গেছে। সে আনন্দে স্টেডিয়ামে নেচে উছলেন বেওয়াচ খ্যাত সেক্সবোম্ব হিসেবে পরিচিত পামেলা এন্ডারসন। ফাইনালে উঠে গেছে ফ্রান্স। এ আনন্দ উপচে পড়ছে দেশটির প্রতিটি অলিগলি। আর্ক ডি ত্রিওমফে থেকে চ্যাম্পস এসিজি পর্যন্ত কোথায় নেই আনন্দ! রাতের ফ্রান্স, রাজধানী প্যারিস এক অন্য রকম চেহারা নিয়েছিল রাতে। তিন রঙা পতাকা হাতে মানুষের সে কি ¯্রােত! ১৯৯৮ সালে বিশ্বকাপ ঘরে তুলেছিল ফ্রান্স। সেই যে জিনেদিন জিদানে ও তার স্কোয়াড এমন সফলতা দেখিয়েছিলেন তারপর অনেকদিন স্বপ্ন নিয়ে তাদের বাঁচতে হয়েছে। এর পরের তারা বিশ্বকাপ ছুঁই ছুঁই করে নাগালে পায় নি। আবার সেই স্বপ্ন তাদের হাতের মুঠোয়। আবার তারা সেই স্বপ্ন দেখছে। দুই দশক আগে তারা ফাইনালে ব্রাজিলকে ৩-০ গোলে হারিয়েছিল। ২০০৯ সালে জিদান আবার তারকা হয়ে উঠেছিলেন। তবে ইতালির মারকো মাতারাজ্জিকে মাথা দিয়ে গুঁতো দিয়ে তার খেলোয়ার জীবনের ইতি ঘটান বিশ্বকাপ থেকে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।