× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৫ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

ভারতে একসঙ্গে নির্বাচন করানোয় বিরোধীদের প্রবল আপত্তি

অনলাইন

কলকাতা প্রতিনিধি | ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার, ৪:৫৫

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে বিভিন্ন রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন একসঙ্গে করানোর জন্য নরেন্দ্র মোদী সরকার তৎপর হয়ে উঠেছে। ইতিমধ্যেই আইন কমিশন এ নিয়ে একটি বৈঠকও ডেকেছিল। বিজেপি সরকারও নানা স্তরে আলোচনা শুরু করেছে। কিন্তু বিরোধীদলগুলি এই প্রস্তাবে প্রবল আপত্তি করেছে। গত মঙ্গলবার দেশটির বৃহত্তম বিরোধী দল কংগ্রেস লোকসভা ও বিধানসভা  ভোট একসঙ্গে করানোর প্রস্তাব খারিজ করে দিয়েছে। কংগ্রেস আইন কমিশনের বৈঠকেও যায় নি। তবে এনডিএ শরিক অকালি দল-সহ এডিএমকে, সমাজবাদী পার্টি ও টিআরএস এই প্রস্তাবকে সমর্থন করলেও অন্তত ৯টি দল তার বিরোধিতা করেছে। কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে,  এই প্রস্তাব শুনতে ভাল, কিন্তু অবাস্তব।
কংগ্রেস  নেতা অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি বলেছেন, দেড় দশক একসঙ্গে নির্বাচন হয়েছে এ দেশে। পরে জনতার ইচ্ছেতেই সেই প্রথা ভেঙেছে। এটি সম্ভব নয় বলেই সংবিধান প্রণেতারা একসঙ্গে সব ভোট বাধ্যতামূলক করেননি। তার মতে, এই ব্যবস্থা বদলাতে সংবিধানে দশটি সংশোধন জরুরি। সিঙ্ঘভি প্রশ তুৃলেছেন, কোথাও অনাস্থা প্রস্তাবে সরকার পড়ে গেলে কি ফের নির্বাচনের পরিবর্তে দীর্ঘ সময় ধরে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি রাখা হবে? বিরোধীরা মনে করছে, চলতি বছর ও পরের বছরে যে ক’টি রাজ্যের বিধানসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে, তাদের ভোটও লোকসভার সঙ্গে করিয়ে নিতে চাইছেন মোদী। নবীন পট্টনায়ক, জগন্মোহন রেড্ডির মত মুখ্যমন্ত্রীরা তাতে সায় দিয়েছেন। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও একসঙ্গে ভোট করার প্রস্তাবে সরাসরি না বলে দিয়েছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর