ঢাকা, ১৮ আগস্ট ২০১৮, শনিবার

‘এখানেই শেষ নয়’

অনলাইন ডেস্ক | ৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার, ৬:১৫

মন্ত্রীপরিষদের বৈঠক শেষে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক নিজ দপ্তরে প্রস্তাবিত আইনের ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, বেপরোয়া ও অবহেলা করে গাড়ি চালানোয় কেউ গুরুতর আহত বা কারও মৃত্যু হলে সে জন্য সর্বোচ্চ পাঁচ বছর সাজা হবে। কিন্তু এখানেই শেষ নয়, যদি তদন্তে ভিন্ন তথ্য পাওয়া যায় তাহলে দন্ডবিধি ৩০২ এবং ক্ষেত্রমতে ৩০৪ এই আইনে প্রযোজ্য হবে। তার মানে, কোনো একটা দুর্ঘটনা হলো। কিন্তু দেখা গেল, তা শুধু সড়ক দুর্ঘটনা বলে চালিয়ে দেওয়া যাবে না, এখানে চালক ইচ্ছে করলে দুর্ঘটনা এড়াতে পারতেন এবং তিনি হত্যাকান্ড ঘটিয়েছেন। তখন দন্ডবিধির ৩০২ অনুযায়ী বিচার হবে। কিন্তু মনে রাখতে হবে, তদন্ত ও তথ্যের ওপর নির্ভর করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এটা ঠিক করবে।

পাঠকের মতামত

**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।


আরিফ

৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার, ৫:২৭

আচ্ছা বাহিনীর খাওয়া দাওয়ার জন্য একটা ফাক রাখা হল

Omar Farook

৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার, ৬:১৩

তদন্তের নামে প্রহসন করে ঐ বাহিনী তা তো প্রমান করে দিল খুদে শিক্ষার্থীরা। তারপর ও তাদের কে ব্যাবসার ফাদ পেতে দেয়া হল তাতে তাদেরকে পোষ্য রেখে পাশে লাঠিয়ান বাহিনী রাখতে সুবিধা যা সংবিধান বহির্ভূত। কি হবে এইরুপ আইন করে?

মাসউদুল গনি

৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার, ৯:৩৫

কোনটা হত্যা আর কোনটি দুর্ঘটনা কিভাবে প্রমান করবেন? আর দলীয় লোক হলে কি করবেন?

মাসউদুল গনি

৬ আগস্ট ২০১৮, সোমবার, ৯:৩৬

আজ বহু বছর মানব জমিনই কেবল পড়ি, কারন অন্য পত্রিকায় খবর পড়া আর না পড়া এক। মাঝে মাঝে ২/১ টা মন্তব্য করি, কিন্তু ছাপা হয় না কেন?