× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা রম্য অদম্য
ঢাকা, ২২ অক্টোবর ২০১৮, সোমবার

মন্ত্রী নিজেই চেক করছেন গাড়ির কাগজ

অনলাইন

স্টাফ রিপোর্টার | ৯ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১১:২৩

সকাল সাড়ে ১০টা। পুরান ঢাকার বাবুবাজার এলাকা। রাজপথে সড়ক ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। একের পর এক গাড়ির লাইসেন্স ও কাগজপত্র যাচাই করছেন। তাকে ঘিরে উৎসুক মানুষের ভিড়।  খবর পেয়ে ছুটে যান গণমাধ্যমকর্মীরাও। ওবায়দুল কাদের প্রথমে একটি বাস থামান। চালকের কাছে কাগজপত্র দেখতে চান। এসময় মন্ত্রীকে দেখে চালক আশ্চর্য হয়ে যান।
মন্ত্রী কাগজপত্র দেখান। কাগজপত্র সব ঠিকঠাক থাকায় বাসটিকে ছেড়ে দেন। এরপর সময় টেলিভিশনের একটি গাড়ি থামান। অবশ্য গাড়ির কাগজপত্র ঠিক থাকায় এটিও ছেড়ে দেন মন্ত্রী। এরই ধারাবাহিকতায় মন্ত্রী আরও কয়েকটি ইলেক্ট্রোনিক মিডিয়ার গাড়ির কাগজ যাচাই করেন। এ সময় মন্ত্রী তার সাথে থাকা ট্রাফিক বিভাগের লোকদের নির্দেশ দেন যাতে গতিসম্পন্ন সড়কে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা না চলে। ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চলাচল করে কি না, স্থানীয়দের কাছে জানতেও চান তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Imam
৯ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৬:০০

Jokes! Funny.

Ruhul Islam
৯ আগস্ট ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ২:১৩

One man army ? Joke

kazi
৮ আগস্ট ২০১৮, বুধবার, ১১:৪৬

মন্ত্রীর কাজ নয় এটি। এটি ১ ফটো সেশন। তার আদেশে দায়িত্ব প্রাপ্ত বেতন ভোগ কর্মচারীরা সঠিক দায়িত্ব পালন করছে কি না তা দেখার দায়িত্ব উনার। দায়িত্ব অবহেলার জন্য শাস্তি দিবার ক্ষমতা রাখেন মন্ত্রীরা। কিন্তু শাস্তি দেওয়ার কাজটি কখনও করেন নি তা প্রতিফলিত হয়েছে স্টাটিস্টিক তথ্য থেকে। যত গাড়ি রাস্তায় চলমান তার চাইতে ড্রাইভিং লাইসেন্স কম ইস্যু হয়েছে। তা ব্যাখ্যা করলেই লাইসেন্সবিহীন চালক আছে প্রমাণিত । অথচ ট্রাফিক এদের ধরেনি। টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়। ট্রাফিকের দুর্নীতি স্পষ্ট । কিন্তু মন্ত্রীরা এদের শাস্তি দেন না।

অন্যান্য খবর