× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার

ঝুঁকিপূর্ণ সেতুতেই যানবাহন চলাচল

এক্সক্লুসিভ

ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি | ১১ আগস্ট ২০১৮, শনিবার, ৭:৫৫

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের শ্রীরামপুর ও বারবারিয়ায় দুটি সেতুতে ব্যাপক ফাটল ধরার পর ধস ঠেকাতে সেতুর নিচের অংশে বালুর বস্তা ও ইটের দেয়াল দিয়ে ঠেকা দেয়া হয়েছে। সম্প্রতি দৈনিক মানবজমিনে সচিত্র সংবাদ প্রকাশের পর দুটি সেতুর ওপর দিয়ে ট্রাক, লরি ও কাভার্ডভ্যানসহ অতিরিক্ত ওজনের ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ করে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়েছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। কিন্তু তাদের নির্দেশ অমান্য করেই সেতু দুটির ওপর দিয়ে প্রতিদিন শত শত ভারি যানবাহন চলাচল করছে। এতে যেকোনো সময় সেতু দুটি ধসে পড়ে বড়ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। জানা গেছে, দেশের ব্যস্ততম ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাই উপজেলা অংশে ষাটের দশকে নির্মিত হয় ১৬টি সেতু। এরমধ্যে ধামরাইয়ের শ্রীরামপুর ও বারবারিয়া গাজীখালি নদীর ওপর নির্মিত দুটি সেতু দীর্ঘদিনেও মেরামত করা হয়নি। কয়েক যুগ ধরে মেরামত না করায় সেতু দুটিতে প্রায় এক বছর আগে হঠাৎ বড় ধরনের ফাটল দেখা দেয়। শ্রীরামপুর এলাকার সেতুর চারটি ভিমের মধ্যে দুটির বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে এবং বারবারিয়া সেতুতেও এক পাশে বড় ধরনের ফাটল দেখা দেয়ার পর ওই পাশ দিয়ে কয়েক মাস আগেই সওজ বিভাগ যানবাহন চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ রাখার জন্য নির্দেশ দেন।
এরপর সেতু দুটির ধস ঠেকাতে ফাটলের নিচের অংশে বালুর বস্তা ও ইটের দেয়াল দিয়ে ঠেকা দেয়া হয়। এ নিয়ে মানবজমিনে সচিত্র সংবাদ প্রকাশের পর সড়ক ও জনপথ বিভাগ সেতু দুটির ওপর দিয়ে ট্রাক, লরি ও কাভার্ড ভ্যানসহ অতিরিক্ত ওজনের ভারী যানবাহন চলাচল নিষেধ করে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয়। কিন্তু গত সোমবার সরজমিনে দেখা যায়, সওজ বিভাগের নির্দেশ অমান্য করেই সেতু দুটির ওপর দিয়ে শত শত ভারী যানবাহন চলাচল করছে। এতে গত কয়েকদিন থেকে সেতুর ফাটল আরো বেড়েছে বলে এলাকাবাসী জানান। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এসডিআইয়ের নির্বাহী পরিচালক ধামরাইয়ের বাসিন্দা সামছুল হক বলেন, যেকোনো সময় সেতু দুটি ধসে পড়ে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। যেহেতু ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক খুবই ব্যস্ততম সড়ক। তাই দ্রুত যানচলাচলের জন্য বিকল্প রাস্তা তৈরি করা উচিত। এদিকে অতিরিক্ত ওজনের গাড়ি নিয়ন্ত্রণ রাখতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের বাথুলিতে বসানো হয়েছে এক্সেল লোড কন্টোল স্টেশন। অভিযোগ রয়েছে, ওই কন্ট্রোল স্টেশনের দায়িত্বে থাকা কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করেই অতিরিক্ত ওজনের মাল বোঝাই ট্রাক-লরি চলাচল করছে। এ অবস্থায় ভারী যানবাহন চলাচল করতে থাকলে যেকোনো সময় সেতু দুটি ধসে মানুষের প্রাণনাশের আশঙ্কা রয়েছে। এ ব্যাপারে ধামরাইয়ের ইসলামপুর-নয়ারহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. আতিক উল্লাহ ভূইয়া বলেন, বাড়বাড়িয়া ও শ্রীরামপুরের দুটি সেতুতে বড় ধরনের ফাটল দেখা দেয়ার পরই ধস ঠেকাতে সেতুর নিচের অংশে বালুর বস্তা ও ইটের দেয়াল দিয়ে ঠেকা দেয়া হয়েছে এবং অতিরিক্ত ওজনের ভারি যানবাহন চলাচল নিষেধ করে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানোর পর ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের ওই ফাটল ধরা দুটিসহ আরো কয়েকটি সেতু নতুন করে নির্মাণের প্রক্রিয়া চলছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর