× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা রম্য অদম্য
ঢাকা, ১৯ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার

শিষ্যদের ধারাবাহিকতায় খুশি ছোটন

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১১ আগস্ট ২০১৮, শনিবার, ১০:০২

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবলের দ্বিতীয় আসরে নিজেদের প্রথম ম্যাচেই পাকিস্তানকে ১৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। ভুটানে অনুষ্ঠিত আসরে প্রথম নিজেদের ম্যাচে মেয়েদের দাপুটে এই জয়ে আনন্দে ভাসছে গোটা দেশ। তবে দলটির কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন এখনই উল্লাসে ভাসতে চান না। শিষ্যদেরও বারণ করেছেন উল্লাস করতে। তার মতে এটা সাধারণ একটা ম্যাচ। উৎসব হবে শিরোপা জয়ের মধ্য দিয়ে। তবে শিষ্যদের ধারাবাহিক পারফরমেন্সে খুশি ছোটন। বর্তমান অনূর্ধ্ব-১৫ দলটি শেষ আট মাসে দু’টি আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতে ভুটানে খেলতে গেছে মেয়েরা।
গেলো ডিসেম্বরে প্রথমবারের মতো আয়োজিত অনূর্ধ্ব-১৫ সাফে শিরোপা জয়ের পর এ বছর হংকংয়ে একটি আমন্ত্রণমূলক টুর্নামেন্টে শিরোপার স্বাদ পায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের মেয়েদের এই ধারাবাহিকতায় সবচেয়ে বেশি খুশি বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। পাকিস্তানকে ১৪-০ গোলে হারানোর পর গতকাল ভুটান থেকে ছোটন বলেন, ‘১৪ গোল মেয়েরা করবে এতটা প্রত্যাশা না থাকলেও মেয়েদের নিয়ে আত্মবিশ্বাস ছিল আমার। এর মূলে হচ্ছে কঠোর ট্রেনিং।’ পাকিস্তানকে হারানো পর গতকাল সকালে ভুটানের রাস্তায় সকালে হালকা ওয়ার্মআপ করেছে মেয়েরা। সেখান থেকে হোটেলে ফিরে বিশ্রামে কাটিয়েছে পুরো বাংলাদেশ। আগের ম্যাচের পারফরমেন্স নিয়ে ছোটন বলেন, ‘ডিসেম্বরে সাফে ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার (সাফ অনূর্ধ্ব-১৫) টানা অনুশীলন করে গেছে মেয়েরা। হংকং একটা আন্তর্জাতিক আসরেও শিরোপা জিতেছে। তাই মেয়েদের মধ্যে কোনো ভয়-ভীতি নেই।’
এরপর ছোটন জানান, বড় জয়ের চেয়ে মেয়েদের ধারাবাহিক পারফরমেন্সই বেশি তৃপ্তি দিচ্ছে তাকে। তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে বড় পাওয়া ৮টা ম্যাচ ওরা একই ধাঁচের খেলা খেলেছে। ফুটবলে যা খুবই কঠিন। একটা দলের পারফরমেন্স আপ অ্যান্ড ডাউন হয়। কিন্তু এই মেয়েরা টানা আট ম্যাচ খেলেছে দাপটের সঙ্গে। সাফে এরপর হংকংয়ে।’ টানা অনুশীলনে থাকার কারণে টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বটা বাংলাদেশের কাছে সহজ হবে কিনা জানতে চাইলে নারী দলের সফল এই কোচ বলেন, পাকিস্তান অনেকদিন পর আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিরেছে। ওদের বিপক্ষে মেয়েরা জিতবে এটা স্বাভাবিক। নেপালের বিপক্ষেও জয় না পাওয়ার কোনো কারণ দেখছি না। তবে এখানে আমাদের আসল প্রতিপক্ষ ভারত। যারা ইতিমধ্যে শ্রীলঙ্কাকে ১২-০ গোলে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে এই আসরে। এদিকে বাংলাদেশ গ্রুপে নিজেদের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ খেলবে আগামী ১৩ই আগস্ট নেপালের বিপক্ষে। ওই ম্যাচে ড্র করতে পারলেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত হবে মেয়েদের। সেমিফাইনালে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষ হিসেবে পাবে শ্রীলঙ্কা কিংবা স্বাগতিক ভুটানকে। টুর্নামেন্টের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে ১৮ই আগস্ট।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর