× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার

নওয়াজ, মরিয়মের সারাজীবনের বেদনা

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৩:২৫

সারাজীবন একটি বেদনা, অনুশোচনা, কষ্ট বয়ে বেড়াতে হবে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ও তার মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে। লন্ডনের হাসপাতালে তারা গত মাসে যখন কুলসুম নওয়াজ যখন কোমায় তখন তাকে ফেলে তারা পাকিস্তানে ফিরে আসেন স্বেচ্ছায় কারাবরণ করতে। তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে পাকিস্তানের আদালত জেলের নির্দেশ দিয়েছে। দেশে ফিরেই জেলে যান পিতা ও কন্যা। ওদিকে নওয়াজ শরীফের স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ লন্ডনের হাসপাতালে কোমায়। গত মাসে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়। তারপর ক্ষণকালের জন্য তিনি চেতনা ফিরে পেয়েছিলেন। ওই সময় তিনি তার স্বামী ও কন্যা মরিয়মকে দেখতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা তখন পাকিস্তানের জেলে। তাকে মিথ্যে কথা বলে শান্তনা দেয়া হয়েছে। ফলে জীবনের শেষ সময়টাতে কুলসুম নওয়াজ তার সবচেয়ে প্রিয়জন নিজের স্বামী নওয়াজ ও মেয়ে মরিয়মের মুখ দেখে যেতে পারেন নি। নওয়াজ ও মরিয়মও জীবিত অবস্থায় তাকে আর কোনোদিন দেখতে পাবেন না। এই বেদনা, এই কষ্ট তাদেরকে সারাজীবন কুরে কুরে খাবে। মরিয়ম নওয়াজ তার মায়ের মৃত্যুর খবরে কিভাবে কেঁদেছেন, কেমন অনুশোচনা করছেন সে সম্পর্কে পাকিস্তানের সাবেক তথ্যমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব তার বর্ণনা দিয়েছেন। তিনি মরিয়ম নওয়াজের জবানিতে বলেছেন, গত মাসে আমার মা যখন চেতনা ফিরে পেলেন তখন আমরা তার কাছে ছিলাম না। আমি ও আমার পিতা সেজন্য ভীষণভাবে অনুতপ্ত। জেলে থাকা অবস্থায় তবু মার সঙ্গে টেলিফোনে বাবাকে সপ্তাহে একবার কথা বলতে দেয়া হতো। তাও জেলের নিয়ম অনুযায়ী সীমিত সময়ের জন্য। একবার মা জানতে চেয়েছিলেন, আমি কেন স্কাইপ মারফতে তার সাক্ষাত করি না বা কথা বলি না, যাতে তিনি আমার মুখখানা দেখতে পান। আমার মা হয়তো ভেবে থাকবেন, আমরা রাজনীতি নিয়ে খুব বেশি ব্যস্ত। তাই হয়তো আমাদের সময় নেই তার সঙ্গে কথা বলার। এই বেদনা আমার সারাজীবন বয়ে বেড়াতে হবে।
মঙ্গলবার লন্ডনের একটি হাসপাতালে ক্যান্সারে আক্রান্ত কুলসুম নওয়াজ মারা যান। তার মৃতদেহ শুক্রবার পাকিস্তানের লাহোরে জাতি উমরায় দাফন করার কথা রয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
Nixon pandit
১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৩:৪২

লুটেরাদের ভাগ্য ঈশ্বর এভাবেই লিখে থাকেন ।আর শান্তি অর্থের বিনিময়ে পাওয়া যায় না বন্ধু ।

অন্যান্য খবর