× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার

বৃষ্টি জেনেও নারী দলের খেলা কক্সবাজারে!

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৪২

মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাকি মাত্র ২ মাস। ওয়েস্ট ইন্ডিজে অনুষ্ঠেয় এ আসরে অংশ নিতে নভেম্বরেই দেশ ছাড়বে সালমা খাতুনের দল। তার আগে বিদেশের কন্ডিশনে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি নেয়ার সুযোগ নেই। যে কারণে ঘরের মাঠেই পাকিস্তানকে অতিথি করে এনে চলছে প্রস্তুতির চেষ্টা। এ মাসের শেষ দিকেই আসবে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দল। সফরে চার টি-টোয়েন্টির সঙ্গে খেলবে একটি ওয়ানডেও। কিন্তু প্রশ্ন জেগেছে প্রস্তুতি সঠিকভাবে নিতে পারবে তো বাংলাদেশ নারী দল? নাকি বৃষ্টিতে ভেসে যাবে নিজেদের প্রস্তুত করার শেষ চেষ্টাও! সবগুলো ম্যাচ খুলনা শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে হবে- শুরুতে এমনই জানিয়ে সূচি প্রকাশ করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। কিন্তু ঠিক তার পরদিনই বিসিবি তা পরিবর্তন করে ম্যাচ নিয়েছে কক্সবাজারে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে। অথচ এর তিন দিন আগেই যুব এশিয়া কাপের ভেন্যু হিসেবে কক্সবাজারকে বাদ দেয়া হয়েছিল বৃষ্টির কারণে। সেই মাঠে তাহলে কেন নারী দলের এমন গুরুত্বপূর্ণ বিশ্বকাপ প্রস্তুতি? এ বিষয়ে নারী ক্রিকেট দলের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিসিবি কর্মকর্তা নাজমুল আবেদিন ফাহিম যুক্তি তুলে ধরে বলেন, ‘আমাদের প্রথম পছন্দ ছিল কক্সবাজারে খেলা। কেননা ওয়েস্ট ইন্ডিজে আমাদের সেই ধরনের পরিবেশে খেলতে হবে। এছাড়া সেখানে হোটেল থেকে মাঠ অনেক কাছে, যাওয়া সহজ। আবহাওয়া তো আমাদের হাতে নেই। তবে আশা করছি সেখানকার গ্রাউন্ডস স্টাফদের সহযোগিতা পাবো ভালোভাবে।’
অন্যদিকে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দলের বিপক্ষেও নিজেদের দারুণ সম্ভাবনা দেখছেন নাজমুল আবেদিন। তিনি বলেন, ‘আমরা যত ম্যাচ খেলবো, তত ম্যাচ জিতে যাবো; বিষয়টা তা না। এমন ভাবা ঠিক না। কেননা পাকিস্তান কতটা শক্তিশালী দল সেটা ওদের ফলাফলই প্রমাণ করে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে আমরা ভালো খেলছি। তাই আমরা আমাদের সমান সমান পর্যায়ে রাখছি। সাম্প্রতিক পারফর্মেন্সে আমরা খুশি। আপাতত আমরা প্রতিটি ম্যাচই জেতার জন্য নামবো। যদি ভালো খেলি তাহলে কেন জিতবো না? এছাড়াও সালমাদের শক্তি নিয়ে ফাহিম বলেন, ‘আমাদের দলের ভালো দিকটা হচ্ছে বোলিং। বিশেষ করে স্পিনারদের কম্বিনেশন। আমাদের দলে লেগ স্পিনার আছে, রাইট আর্ম অফ স্পিনার আছে। এরা প্রত্যেকেই ভালো বল করে। গত তিন মাসে এরা যথেষ্ট অভিজ্ঞতা অর্জন করেছে। এছাড়া আমাদের পেস বোলাররা উন্নতি করেছে। সব মিলিয়ে আমি বলবো বোলিংটা আমাদের বড় শক্তি।’

বাংলাদেশ-পাকিস্তান সূচি
১লা অক্টোবর    প্রথম টি-টোয়েন্টি    কক্সবাজার
৩রা অক্টোবর    দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি    কক্সবাজার
৪ঠা অক্টোবর    তৃতীয় টি-টোয়েন্টি    কক্সবাজার
৬ই অক্টোবর    চতুর্থ টি-টোয়েন্টি    কক্সবাজার
৮ই অক্টোবর    একমাত্র ওয়ানডে    কক্সবাজার

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর