× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

এবার চালু হল হাইড্রোজেন রেলগাড়ি

তথ্য প্রযুক্তি

অনলাইন ডেস্ক | ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার, ৫:৪৬

জার্মানিতে চালু হল বিশ্বের প্রথম হাইড্রোজেন রেলগাড়ি। আগের সকল ডিজেলচালিত ইঞ্জিনগুলো সরিয়ে ফেলে অত্যাধুনিক হাইড্রোজেন ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে রেলগাড়িতে যা বর্তমানে পৃথিবীর নতুন পরিবহন প্রযুক্তি।
বার্তা সংস্থা এএফঅইর বরাত দিয়ে জানা যায়, গতকাল এই হাইড্রোজেন রেলগাড়িটি প্রথম ছাড়া হয় জার্মানির লোয়ার সেক্সন রাজ্যের ব্রেমেরফুরদে স্টেশন থেকে। দেশটির কুক্সহাভেন এবং বুক্সতেহুদে শহরের মধ্যকার ১০০ কিলোমিটার রেলপথে যে সকল ট্রেন চলাচল করতো সেগুলোর ডিজেল ইঞ্জিন সরিয়ে নিয়ে হাইড্রোজেন ইঞ্জিন সংযুক্ত করা হয়। ফ্রান্সের আলস্টম প্রতিষ্ঠানের তৈরি আরও ১৪টি হাইড্রোজেন ইঞ্জিন ২০২১ সালের মধ্যে ট্রেনে প্রতিস্থাপন করার পরিকল্পনা করছে দেশটি।

ট্রেনটির উদ্বোধনী যাত্রা উপলক্ষে ব্রেমেরফুরদে স্টেশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে আলস্টমের প্রধান নির্বাহী হেনরি পোপোর্ট-লাফার্জ বলেন, “আজ থেকে বাণিজ্যিক সেবা শুরু করলো বিশ্বের প্রথম হাইড্রোজেন ট্রেন। এর নিয়মিত উৎপাদনের জন্যেও আমরা প্রস্তুত রয়েছি।”

আলস্টমের হাইড্রোজেন ইঞ্জিন প্রকল্পের ব্যবস্থাপক স্টেফান শরাঙ্ক বলেন, “এ কথা সত্য যে ডিজেল ইঞ্জিনের চেয়ে হাইড্রোজেন ইঞ্জিনের দাম বেশি। তবে এর পরিচালনা খরচ অনেক কম।”

একটি হাইড্রোজেন ট্যাঙ্ক ট্রেনের সঙ্গে সংযুক্ত থাকে আর ছাদে থাকে এর জ্বালানি কোষ। অক্সিজেন এবং হাইড্রোজেনের সংমিশ্রণ ঘটিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদন করার ফলে অতিরিক্ত জ্বালানি সংরক্ষিত হবে ব্যাটারিতে।
একবার জ্বালানি নিয়ে ট্রেনটি ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার গতিতে এক হাজার কিলোমিটার চলাচল করতে পারবে। তাছাড়া, হাইড্রোজেন ইঞ্জিন থেকে কোন ধোঁয়া বের না হয়ে বাষ্প বের হবে। আর কোন শব্দ দূষণ করে না এই ট্রেন।

প্রসঙ্গত, পরিবেশ দূষণ কমানোর লক্ষ্যে জার্মানির লোয়ার সেক্সন রাজ্য ইতিমধ্যেই ৮১.৩ মিলিয়ন ইউরো খরচ করেছে। আগামী ২০৫০ সালের মধ্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার কারণে এই প্রকল্প শুরু করা হয়।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর