× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার
ফেসবুক থেকে নেয়া

ধর্ষিতার সঙ্গে চিকিৎসকের কথোপকথন

ষোলো আনা

ষোলো আনা ডেক্স | ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:২৪

একজন ডাক্তার ধর্ষণ নিয়ে তার বাস্তব অভিজ্ঞতা বললেন...

‘আপা কাগজে একটা আলতাসনো লিখ্যা দেন’- আউটডোরের খালার আবদারে বিরক্ত আমি।
‘রোগী না দেখে আমি কিছু লিখবো না। আগে রোগী আনেন।’ শীতল গলায় জানিয়ে দিলাম।
গুটিগুটি পায়ে অনুপ্রবেশ ঘটলো এক কিশোরীর। শ্যামলা গায়ের রং, মাথায় দুই বেনী। পরনে ঢিলাঢালা ফ্রক, বয়সের তুলনায় বেশ অপুষ্ট। দু’চোখে গভীর অবসাদ।
-কি সমস্যা তোমার?
...কিশোরী নীরব।
-‘আপা ওর প্যাটে বাইচ্চা। চাইর মাস। নষ্ট করতে আইছে।’
আমার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়লো !
হিস্ট্রি নিয়ে জানলাম ...
She was gang raped while returning from tutors home!
দুঃখিত আমি এই লাইনটা বাংলায় লিখতে পারলাম না! হাতে আর জোর পাচ্ছিলাম না...
কাঁপা কাঁপা হাতে লিখে দিলাম 'USG of pregnancy profile'
পরে আবার সেই কিশোরীর সঙ্গে দেখা হয়েছিল ফার্মেসির সামনে। আমাকে  দেখে বিব্রত।
মাথায় হাত বুলিয়ে বলতে ইচ্ছে করেছিল-
তুমি কেন লজ্জা পাচ্ছো? লজ্জা পাবো তো আমরা।
মানুষ হয়ে জন্ম নিয়েছি তাই। আমি এই দেশের, এই সমাজের একজন অক্ষম, নিষ্ক্রিয় সদস্য লজ্জা তো আমাদের প্রাপ্য।

ঘটনা : ২
সেদিন ছিল মঙ্গলবার। এডমিশন রুমে মধ্যবয়সী এক লোকের প্রবেশ।
-কি সমস্যা?
-আপা আমার মাইয়াডা ধর্ষণ হইছে। অবস্থা খুব খারাপ, আপা। মামলা করুম না। শুধু একটু চিকিৎসা দ্যান।
And it was another case of gang rape by neighbors...
রোগীকে আনতে বলা হলো ।
না না! সে কোনো উত্তেজক পোশাক পরা সুন্দরী নন। ৫ বছরের মেয়ে শিশু, মায়ের  কোলে চড়ে এসেছে। শিশুর! দু’চোখে পানি। আর আমার বুকের ভেতর রক্তক্ষরণ ...!

পরিশিষ্ট :::
*** যদি আপনার পরিবারে ০ থেকে ৯০ বছরের কোনো নারী সদস্য থেকে থাকে, তবে লেখাটি আপনার জন্যই।

*** আপনার কন্যা শিশুটিকে প্রতিবেশী, গাড়ির ড্রাইভার, বাবার বন্ধু, মায়ের কলিগ, মামার ক্লাসমেট টাইপের কারো কাছে আপনার অনুপস্থিতিতে যেতে  দেবেন না।

*** আপনি যখন রাস্তায় কোনো  মেয়েকে দেখে চোখের ব্যায়ামটা সেরে নিচ্ছেন, আপনার পরিবারের কোনো নারী সদস্য হয়তো তখন হয়রানির শিকার হয়ে বাড়ি ফিরছে।

***আজ থেকে নতুন করে ভাবুন। আপনার আশেপাশের নারীদের প্রতি আপনার দৃষ্টিভঙ্গি কেমন? এবং নিজ পরিবারের নারী সদস্যদের প্রতি অন্য পুরুষের কেমন আচরণ আপনি আশা করছেন?

 লেখা: ডা. তাহসিনা হায়দার

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
MD. MAMUN
২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার, ৩:৪৫

এর এক মাত্র প্রতিকার হচ্ছে ইসলামি অনুশাসন।

আতিক
২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শনিবার, ১১:০১

ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করার সাহস পেলাম না ম্যাম,,, সত্যি অসাধারণ হয়েছে পোষ্ট টা। আমাদের দিষ্টি ভঙ্গি বদলালেই সমাজের পরিবর্তন সম্ভব।

মোহাম্মদ ফারুক
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৪৬

এর এক মাত্র প্রতিকার হচ্ছে ইসলামি অনুশাসন।

kazi
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ২:৫৯

এই শেষ উপদেশ যদি সবাই পালন করত তাহলে ধর্ষণ বন্ধ হয়ে যেত। আমরা অন্যভাবে বলি ঘরে তোমার মা বোন আছে, এরাও কারও না কার মা বোন। তোমার মা বোনের প্রতি যে রুপ আচরণ আশা কর এদের প্রতি সে রুপ আচরণ কর।

Rizone
২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৮:৩৫

Public Firing Squad is the only solution for these criminals. Punishment for crime for wrong doer and fear will be instilled among the rest at the same time.

Amin
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৬:২৫

Very nice writeing. We should must be changed.

রুহুল আমিন
২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৪:৫৫

আপনি বড়ই সেকেলে , মেয়েদেরকে আবদ্ধ রাখতে চান । এখন ভাবুন কী করবেন ?

অন্যান্য খবর