× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদত্যাগের দাবি

শিক্ষাঙ্গন

জাবি প্রতিনিধি | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, রবিবার, ৬:৩২

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের পদত্যাগ দাবি করেছেন জাবি আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের একাংশের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ এর নেতৃবৃন্দ।

রবিবার বিকাল ৪টায় বিশ^বিদ্যালয়ের গাণিতিক ও পদার্থ বিজ্ঞান অনুষদের অফিসে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এই দাবি জানান। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র দর্শন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ফরিদ আহমেদ।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘উপাচার্য বিশ^বিদ্যালয়ের ১৯৭৩ এর অ্যাক্ট লঙ্ঘন করে যাচ্ছেন। অ্যাক্ট অনুযায়ী তিনি উপাচার্য প্যানেল ঘোষণা করছেন না। শিক্ষক লাঞ্ছনার বিচার করছেন না সেই সাথে নিপীড়নের উদ্দেশ্যে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক তদন্ত কমিটি গঠন করছেন। সিন্ডিকেট, ডীন, অর্থ কমিটি, সিনেট থেকে সিন্ডিকেট প্রতিনিধি নির্বাচন দিচ্ছেন না। মাদক ও র‌্যাগিং ইস্যুতে যথাযথ পদক্ষেপ নিচ্ছেন না।’

লিখিত বক্তব্যে উপাচার্যের ব্যর্থতার কারণে বিশ^বিদ্যালয়ে সৃষ্ট ১৯ টি সংকট উল্লেখ করে দাবি করা হয় উপাচার্য তাঁর পদে বহাল থাকার নৈতিক অধিকার হারিয়েছেন। তাই অবিলম্বে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি করেন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ ’ এর নেতৃবৃন্দ।


এক প্রশ্নের জবাবে সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক তারেক রেজা আইআইটি পরিচালক পদে শিক্ষক নিয়োগ দিয়ে উপাচার্যের পরিচালক পদে আসীন হওয়াকে অনৈতিক দাবি করেন।
এই ব্যাপারে মন্তব্য জানতে বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ফোন দেয়া হলে তিনি ফোন ধরেননি।

উল্লেখ্য, গত মার্চে জাবি উপাচার্য হিসেবে পুনঃনিয়োগ পাওয়ার পর থেকে উপাচার্যের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছেন সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবির সমর্থিত আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের এই অংশ।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর