× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

পশ্চিমবঙ্গে আদালতে পুলিশকে গুলি করে পালিয়েও রক্ষা পায়নি এক বন্দি

ভারত

কলকাতা প্রতিনিধি | ৪ অক্টোবর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৯:৩৪

 রীতিমত ফিল্মি কায়দায় আদালতে বন্দুক ছিনিয়ে পুলিশকে গুলি করে পালিয়েছিল এক বিচারাধীন বন্দি। তবে শেষপর্যন্ত পুলিশের হাতে সে ধরা পড়ে গিয়েছে। বৃহষ্পতিবার ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথি আদালতে। এদিন সকালে আদালতে তোলা হচ্ছিল কর্ণ বেরা নামে এক বিচারাধীন আসামীকে। পুলিশ খুনের অভিযোগ ছাড়াও একাধিক ডাকাতি ও খুনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। সঙ্গে ছিল আরও চার বিচারাধীন বন্দি। অভিযোগ, সেসময় আচমকাই বন্দুক ছিনিয়ে নিয়ে  কোর্ট ইন্সপেক্টর সুশান্ত রানাকে খুব কাছ থেকে গুলি করে কর্ণ।

নিখুঁত পরিকল্পনা অনুযায়ী অপারেশন হলেও শেষ পর্যন্ত মূল অভিযুক্ত কর্ণ পালিয়ে বেশিদূর যেতে পারেনি।
একসময় পিস্তল থেকে ক্রমাগত গুলি চালালেও শেষপর্যন্ত গুলি ফুরিয়ে যাওয়ায় সে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়েছে। জানা গেছে, মহিষাদলে পুলিশ কনস্টেবল খুনে ধৃত  কুখ্যাত দুষ্কৃতী কর্ণ বেরাকে ছিনিয়ে নিতে আদালত চত্বরে জড়ো হওয়া দুষ্কৃতীরা বোমা, গুলি ছুড়ে আসামী ছিনতাই করে।  কিছু দূরেই দুই যুবক বাইক নিয়ে কর্ণের জন্য অপেক্ষা করছিল। তারাই কর্ণকে নিয়ে চম্পট দিয়েছিল। তবে পুলিশের তল্লাশিতে সে ধরা পড়ে গিয়েছে। এর আগে তিন বার জেল থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল কর্ন। কিন্তু প্রতিবারই পুলিশের কাছে ধরা পড়ে গিয়েছিল।

কে এই কর্ন বেরা?
কাঁথির বাসিন্দা কর্ন কুখ্যাত ডাকাত।  কয়েক বছর আগে মহিষাদলে পুলিশ কনস্টেবল নবকুমার মাইতিকে খুন করে অভিযোগ ওঠে তার বিরুদ্ধে। কনস্টেবল খুনে সোনারপুর থেকে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। তখন থেকে কাঁথি আদালতেই রয়েছে কর্ন। বৃহস্পতিবার সকালেও আদালতে তোলার সময়ে পুলিশকে পরপর চারটি বোমা ও গুলি করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু ঘণ্টা খানেকের মধ্যেই কাঁথি বাজার থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিস।   আহত পুলিস কর্মীদের কাঁথি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর