× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার

ত্রিপুরায়ও নাগরিকপঞ্জি করার আবেদন, কেন্দ্রের মত জানতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৯ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার, ১:১৪

আসামের মতো ত্রিপুরায়ও নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) প্রণয়নের আবেদনে ভারতের কেন্দ্রের মতামত জানতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। এক্ষেত্রেও কথিত অবৈধ বাংলাদেশী অভিবাসী থাকার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, বছরের পর বছর ধরে ত্রিপুরায়ও কথিত বাংলাদেশী অনুপ্রবেশের কারণে স্থানীয় মূল উপজাতিরা সংখ্যালঘুতে পরিণত হচ্ছে। এর ফলে রাজ্যটিতে ধ্বংসের মুখে পড়ছে জাতিগত সংস্কৃতি। এরই প্রেক্ষিতে আসামের মতো ত্রিপুরায়ও নাগরিকপঞ্জি করার জন্য আবেদন করে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ‘ত্রিপুরা পিপলস ফ্রন্ট’। এ নিয়ে শুনানি করছে প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি আরএফ নরিমনের বেঞ্চ।
আবেদনে বলা হয়েছে, যেভাবে অবৈধ অনুপ্রবেশ বেড়ে গেছে তাতে আসামে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। এ সমস্যা রাজ্যকে তিন দশক ধরে চেপে ধরে আছে।
তার প্রেক্ষিতে সেখানে নাগরিকপঞ্জি করা প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছিল। তবে বর্তমানে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি ত্রিপুরার। সেখানে বাংলাদেশ থেকে ব্যাপক হারে অনুপ্রবেশ ঘটছে বলে অভিযোগ করা হয়। বলা হয়, এতে উপজাতি অধ্যুষিত ওই রাজ্যে জনসংখ্যাতত্ত্বে ব্যাপক পরিবর্তন দেখা দিয়েছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
পাঠকের মতামত
**মন্তব্য সমূহ পাঠকের একান্ত ব্যক্তিগত। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।
kazi
৯ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার, ২:০১

কোন অবস্থাতেই ভারতের জনগণের সামাজিক ও আর্থিক অবস্থা বাংলাদেশের চাইতে স্বচ্ছল নয়। কোন দুঃখে বাংলাদেশীরা ভারতে দৈন্য দশা ভোগতে যাবে । ভারতে দেশ ভাগের পর (পাকিস্তান- হিন্দুস্থান ) যারা সম্পত্তি বিক্রি করে চলে গিয়েছিল তাদেরকেই আজ বাংলাদেশী চিহ্নিত করার ষড়যন্ত্র হচ্ছে। এরা খালি হাতে যায় নি, সাথে সম্পত্তি নিয়ে গিয়ে ভারতের উন্নতিতে যোগান দিয়েছে।

অন্যান্য খবর