× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা
ঢাকা, ১৬ অক্টোবর ২০১৮, মঙ্গলবার

সুপ্রিম কোর্টে আইনজীবীদের হাতাহাতি-হট্টগোল

শেষের পাতা

স্টাফ রিপোর্টার | ১০ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার, ৯:৫০

মারামারিতে জড়িয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আওয়ামী লীগ ও  বিএনপিপন্থি কয়েকজন তরুণ আইনজীবী। গতকাল দুপুরে সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের দ্বিতীয় তলায় আইনজীবীদের বসার জন্য নির্দিষ্ট ১ নম্বর হল রুমের (শামসুল হক চৌধুরী হল) চেয়ার-টেবিল সরিয়ে প্রতিবাদ সভাকে কেন্দ্র করে বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবীদের মধ্যে এ হাতাহাতি ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটে। আপিল বিভাগে বিচারপতি নিয়োগে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের অভিযোগ করে এ সভার আয়োজন করে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি। সভার শুরুতে বক্তব্য দেন সমিতির সম্পাদক এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। পরে তিনি সভায় বক্তব্য দেয়া সবার জন্য উন্মুক্ত করে দেন। এসময় সমিতির সাবেক ও বর্তমান কয়েকজন নেতা সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। একপর্যায়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর ও আওয়ামীপন্থি আইনজীবী সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন বক্তব্য দিতে যান। মাহবুব উদ্দিন খোকন তাকে বক্তব্য দেয়ার আহ্বান জানান।


এ সময় তিনি চেয়ার- টেবিল সরিয়ে প্রতিবাদ সভার ব্যাপারে আপত্তি জানিয়ে বক্তব্য দেন। তার এ বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে ‘ঠিক’, ‘ঠিক’ বলে উচ্চস্বরে আওয়াজ দেন কয়েকজন তরুণ আইনজীবী। বক্তব্য দিয়ে চলে যাওয়ার সময় সাইয়েদুল হক সুমন মঞ্চের পেছনে দাঁড়িয়ে থেকে আরো কিছু বলার চেষ্টা করেন। এসময় ক্ষেপে ওঠেন বিএনপিপন্থি তরুণ আইনজীবীরা। তারা তাকে চলে যেতে বলেন। একপর্যায়ে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে। উভয়পক্ষে তর্ক-বিতর্ক ও হাতাহাতি হয়। একজন আরেকজনের দিকে তেড়ে যান। ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়েন তারা। মঞ্চের বামপাশে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন উভয়পক্ষের তরুণ আইনজীবীরা।

একপর্যায়ে মঞ্চের সামনেও হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তিতে লিপ্ত হন তারা। সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন এসময় মঞ্চেই বসা ছিলেন। আর সমিতির সম্পাদক মাইকে সবাইকে শান্ত থাকার অনুরোধ জানান। পরে সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। এই হলরুমের ঐতিহ্য রয়েছে। এখানে অনেক বিখ্যাত আইনজীবী মিটিং করেছেন। বড় বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এই হলরুমে এ ধরনের ঘটনা অনাকাঙ্ক্ষিত ও অনভিপ্রেত। এটা মেনে নেয়া যায় না। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর