× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার

মি টু আন্দোলনে এবার অভিযুক্ত ভারতের মন্ত্রী

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ১০ অক্টোবর ২০১৮, বুধবার, ১:৪৭

ভারতের যৌন হয়রানির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া মি টু আন্দোলনে এবার অভিযোগ উঠেছে মোদী সরকারের একজন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে। এম জে আকবর, একজন সাবেক সম্পাদক এবং বর্তমানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। তার বিরুদ্ধে বেশ কয়েকজন নারী সাংবাদিক অভিযোগ তুলেছেন।
প্রিয়া রামানি নামের একজন সাংবাদিক গত বছর এম জে আকবরের নাম প্রকাশ না করে একটি আর্টিকেল লিখেছিলেন। তিনি সেখানে আকবরকে একজন সম্পাদক উল্লেখ করে তার সঙ্গে করা অসঙ্গত আচরণ নিয়ে লিখেছিলেন। প্রিয়াই ছিলে প্রথম কোনো নারী সাংবাদিক যিনি ভারতে মি টু আন্দোলনে প্রকাশ্যে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।  
তিনি বলেন, প্রায় বিশ বছর আগে আকবর তাকে একটি চাকরির ইন্টারভিউয়ের জন্য মুম্বাইয়ের একটি হোটেল রুমে ডাকেন। তখন প্রিয়া ২৩ বছর বয়সী ছিলেন।

গত বছর লেখা আর্টিকেলটিই গত সোমবার প্রিয়া টুইটারে আবার পোস্ট করেন। সেখানে তিনি লিখেন, আকবর অশ্লীল ফোন কল, ম্যাসেজ এবং অসঙ্গত মন্তব্যে পারদর্শী ছিলেন। কারো কোনো কথা আমলে নিতেন না। আপনি জানেন কিভাবে হেনস্তা করতে হয়। আপনার বিরুদ্ধে কথা বললে চরম মূল্য দিতে হয়। আর অনেক যুবতীই এই মূল্য বহন করতে পারেনা। আমি এম জে আকবরের গল্প দিয়ে আমার আন্দোলন শুরু করেছিলাম। আমি এর আগে কখনই তার নাম প্রকাশ করিনি। কেননা আমার সঙ্গে তিনি তেমন কিছুই করেননি। অনেক নারীরই এই নারী শিকারির সম্পর্কে এর থেকেও খারাপ অভিজ্ঞতা রয়েছে। হয়ত তারা সেগুলো প্রকাশ করবেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেকজন নারী সাংবাদিক বলেছেন, আকবরের আমন্ত্রণে তিনিও একবার হোটেল রুমে যান। হোটেলের বিছানায় বসে ইন্টারভিউ দেয়ার সেই অভিজ্ঞতার পর তিনি চাকরির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেন। সাংবাদিক প্রেরণা সিং জানান, এম জে আকবরের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার পর তার কর্মস্থল নরকে পরিণত হয়েছিল।
এএফপির পক্ষ থেকে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে এ বিষয়ে মন্তব্য করার অনুরোধ জানালেও মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এখনও কোনো মন্তব্য করা হয়নি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজকে এই অভিযোগের তদন্ত করা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের সে প্রশ্নের কোনো জবাব দেন নি।
এম জে আকবর ভারতের সব জনপ্রিয় সংবাদপত্র দ্য টেলিগ্রাফ, এশিয়ান এজ এবং দ্যা সানডে গার্ডিয়ান এর সম্পাদক ছিলেন। বর্তমানে তিনি একজন সংসদ সদস্য।
প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত ১০ বছর আগে তার সাথে হওয়া যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছেন। নানা পাটেকারের বিরুদ্ধে তিনি অসঙ্গত আচরণের অভিযোগ এনেছেন। তাকে অনুসরণ করেই অনেকে তাদের জীবনে ঘটে যাওয়া এসব ঘটনা মি টু আন্দোলনের মাধ্যমে সামনে আনছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর