× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার

কীটনাশক দিয়ে ধান ক্ষেত পোড়ানোর অভিযোগ

বাংলারজমিন

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার, ৮:৪৩

কমলগঞ্জের তিলকপুর গ্রামে এক কৃষকের ধানি জমি বিষ জাতীয় কীটনাশক দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। দু’দফা বিষ দিয়ে আমন ধানের ক্ষেত পুড়িয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কৃষক নীলমণি সিংহ। জানা গেছে, কমলগঞ্জের তিলকপুর গ্রামের তিলকপুর মৌজার জেএল নং-৮৪, খতিয়ান নং-২২৫৭ এর ১০৯০নং দাগে ৩০ শতক জমি তিলকপুর উত্তর পল্লী এলাকার নীলমণি সিংহ তার মা রেবতী রানী সিনহার নামে ক্রয় করে দীর্ঘদিন ধরে তিনি চাষাবাদ করে আসছেন। সম্প্রতি ওই জমির ওপর নজর পড়ে স্থানীয় প্রভাবশালী একটি ভূমিখেকো চক্রের। ওই চক্রটি নীলমণি সিংহের নিকট আত্মীয় উজ্জ্বল সিংহ সিপন ও লিটন সিংহকে হাত করে ওই জমিটি জোরপূর্বক দখলে কয়েক দফা চেষ্টা চালায়। এ নিয়ে আদালতে মামলা মোকদ্দমা চলছিল। একপর্যায়ে জমির মালিকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিরোধকৃত জমিতে প্রতিপক্ষের প্রবেশে ১৪৪ ধারা জারি করে আদালত। আদালতে মামলা চলাবস্থায় এবং নিষেধাজ্ঞা বলবৎকালে প্রতিপক্ষ সিপন ও লিটনকে সঙ্গে নিয়ে গত ৩১শে মে প্রভাবশালী মহল জমি দখলে যায়।
এ সময় হামলাকারীরা নীলমণি সিংহের রোপণকৃত পাকা ধান কেটে নিতে চাইলে জমির মালিক নীলমণি সিংহ বাধা দিলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে কাটা ধান জব্দ করে। পরে আদালতের নির্দেশে ধানগুলো ফিরে পান নীলমণি। নীলমণি জানান, চলতি আমন মওসুমে জমিতে ধান রোপণের জন্য হাল চাষ করতে গেলে প্রভাবশালীর মহলের নেতৃত্বে প্রতিপক্ষরা তাতে বাধা দেয়। পরে তিনি জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপে জমিতে ধান রোপণ করেন। রোপণকৃত ধানের চারা যখন বেড়ে উঠছিল তখনি গত ৮ই অক্টোবর রাতে রোপণকৃত ধান ক্ষেতে বিষ দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এ নিয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে বিচারপ্রার্থী হলে ১০ই অক্টোবর রাতে দ্বিতীয় দফা পুরো ধান ক্ষেতে বিষ জাতীয় কীটনাশক দেয়া হয়। গতকাল সকালে সরজমিন দেখা যায়, আমন ফসলের ধান ক্ষেতে দু’দফা বিষ জাতীয় কীটনাশক দেয়ায় নীলমণি সিংহের রোপণকৃত আমন ফসলের পুরো ধানি চারা জমি পুড়ে গেছে। নীলমণি সিংহ অভিযোগ করেন, প্রতিপক্ষরা রাতের আঁধারে তার ধানি ফসলের জমিতে দু’দফা বিষ দিয়ে পোড়ানোর ফলে তিনি আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন কৃষক নীলমণি। তবে প্রতিপক্ষ উজ্জ্বল সিংহ সিপন তার বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর