× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার

নীলফামারী জেল সুপারের বিরুদ্ধে লালমনিরহাটে মামলা

বাংলারজমিন

লালমনিরহাট প্রতিনিধি | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৪০

নীলফামারী কারাগারের জেল সুপার নজরুল মিয়া ও তার স্ত্রীসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে লালমনিরহাট আদালতে মামলা হয়েছে। গৃহপরিচারিকার কাজের জন্য চাদনীকে নেয়ার পর তার পরিবারের কাছে ফেরত না দেয়ায় ১০০ ধারায় মামলা  করেছে তার মা  মরিয়ম বেগম। মামলার বিবরণে জানা গেছে, নিলফামারী কারাগারের সুপার মো. নজরুল মিয়া লালমনিরহাট কারাগারে থাকা অবস্থায় প্রায় ৫ বছর আগে শহরের খোঁচাবাড়ি এলাকার ভ্যান চালক দুলাল মিয়ার কন্যা চাদনীকে কাজের জন্য তার বাড়িতে নেয়। জেল সুপার নজরুল রংপুর কোতোয়ালি থানার হলদিটারী গণেশপুর এলাকায় তার বাড়িতে  নিয়ে রাখে। জেল সুপারের পরিবারের লোকজন শিশু চাদনীকে নির্যাতন করতো। তাকে মারধরসহ নানাভাবে করতো নির্যাতন। চাদনীর বাবা ও মা তাদের সন্তানকে দেখতে চাইলে তাকে দেখতে না দিয়ে নানান ভাবে হুমকি দেয়। তার মেয়ে  অসুস্থ হয়ে পড়লেও এক নজর দেখতে না দিয়ে হুমকি দেয়ায় কন্যার জন্য পাগল হয়ে পড়েছে তার পরিবার।
এ ঘটনায় গৃহপরিচারিকা চাদনীকে উদ্ধারের জন্য তার মা মরিয়ম বেগম বাদী হয়ে তৎকালীন লালমনিরহাট ও বর্তমান নিলফামারীর জেল সুপার নজরুল মিয়া তার স্ত্রী মোছাঃ কাকলী বেগম ও নুরুজ্জামান মিয়ার বিরুদ্ধে কন্যা উদ্ধারের জন্য মামলা করে। ওদিকে চাদনীর পিতা দুলাল মিয়া তার কন্যা চাদনীকে ফেরত চেয়ে লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের কাছে নিলফামারীর জেল সুপার নজরুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে। মামলা দায়েরের পর আদালত শিশু চাদনীকে নিয়ে আদালতে হাজিরের জন্য রংপুর কোতোয়ালি থানার ওসিকে সার্চ ওয়ারেন্ট জারি করেন। ওদিকে চাদনীর বাড়ি লালমনিরহাট শহরের খোঁচাবাড়ী এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে সন্তানের জন্য তার মা পাগল হয়ে গেছে। এ নিয়ে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসীও। এলাকাবাসীর দাবি চাদনীকে নীলফামারী কারাগারের জেল সুপার নজরুল মিয়া ফেরত না দিলে তারা মানববন্ধনসহ নানান কর্মসূচি পালন করবে। তবে জেল সুপার নজরুল মিয়ার সঙ্গে মোবাইলে ফোন করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর