× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, বুধবার

সরকার বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে: সিলেট বিএনপি

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৫১

২১শে আগস্টের গ্রেনেড হামলাকে হাতিয়ার বানিয়ে আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকার তাদের রাজনৈতিক প্রতিহিংসাকে চরিতার্থ করেছে। অন্যায় ও অযৌক্তিকভাবে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানসহ বিএনপি নেতাদের জড়িয়ে ফরমায়েসি সাজা প্রদানের রায় জাতি প্রত্যাখ্যান করেছে বলে দাবি করেছেন সিলেট বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ। গতকাল বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেটের রেজিস্ট্রি মাঠে আয়োজিত বিক্ষোভ সভায় বিএনপি নেতারা এমন বক্তব্য প্রদান করেন।  
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে ফরমায়েসি রায়ে যাবজ্জীবন সাজা প্রদানের প্রতিবাদে সিলেট জেলা ও মহানগর আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, দেশের জনগণ আওয়ামী লীগ সরকারের বিচার ব্যবস্থা সম্পর্কে পুরো অবগত আছে। আদালতকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহারের মাধ্যমে বাকশালী সরকার গোটা বিচার ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তাদের ভয়াল রোষানল থেকে তাদের অনুগত প্রধান বিচারপতিও রেহাই পাননি। এমন অবস্থায় আওয়ামী লীগের কাছ থেকে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করা বোকামির শামিল। অবিলম্বে এই ফরমায়েসি রায় বাতিল করতে হবে।
তিনবারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন দিতে হবে।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে ও মহানগর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আজমল বখত চৌধুরী সাদেকের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আলহাজ এম. এ হক, বিএনপির কেন্দ্রীয় সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক এমপি আলহাজ শফি আহমদ চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল কাইয়ুম জালালী পংকী, মহানগর সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান হাবিব, ফরহাদ চৌধুরী শামীম। এছাড়া নগরী ঐতিহাসিক রেজিস্টারি মাঠে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সকল পর্যায়ের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।
সভাপতির বক্তব্যে আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- অবৈধ ফ্যাসিস্ট সরকার আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে বিএনপিকে নিশ্চিহ্ন করার যে ষড়যন্ত্র শুরু করেছিল ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলার মামলার ফরমায়েসি রায়ে তার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। জাতি বাকশালী সরকারের এই ফরমায়েসি রায় ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে।
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আলহাজ এম. এ হক বলেন- আওয়ামী লীগের বাকশালী শাসনে দেশের প্রতিটি রাষ্ট্রযন্ত্র আজ বাকশালীরূপে জাতির নিকট আবির্ভূত হয়েছে। বিএনপিকে নেতৃত্বশূন্য করতে প্রথমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ষড়যন্ত্রমূলক মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে আটকে রাখা হলো, এখন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানকে যাবজ্জীবন সাজা দিয়ে রাজনীতির ময়দান থেকে দূরে রাখার নীল নকশা করা হলো। কিন্তু কোনো ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। দেশনেত্রীকে নিয়েই বিএনপি নির্বাচনে যাবে এবং সময়ের ব্যবধানে সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দেশনায়ক তারেক রহমান বীরের বেশে বাংলাদেশে আসবেন।
সিলেট বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি দিলদার হোসেন সেলিম বলেন- দেশের আদালতগুলোতে এখন সরকারের কাছ থেকে প্রেরিত রায় পাঠ করে শোনানোর প্রতিযোগিতা চলছে। কেউ ন্যায়বিচার করলে সেই বিচারককে শুধু চেয়ার নয়, এমনকি দেশও ছাড়তে হচ্ছে। নিজেদের লোকদের বিচার প্রক্রিয়ায় জড়িত করে ইচ্চে মাফিক তদন্ত এবং রায় প্রদান করা হচ্ছে। এই সরকারের কাছে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করে কোনো লাভ নেই। গণবিস্ফোরণে এই সরকারকে বিদায় করে জনতার সরকার প্রতিষ্ঠিত হলেই মানুষ ন্যায়বিচার পাবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর