× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, রবিবার

আশুলিয়ায় গৃহবধু গণধর্ষিত

বাংলারজমিন

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার থেকে | ১২ অক্টোবর ২০১৮, শুক্রবার, ১০:১৬

সাভারের আশুলিয়ায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছে এক গৃহবধূ। গতকাল সকালে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ এক ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে। এর আগে বুধবার বিকেলে আশুলিয়ার উত্তর গাজীরচট এলাকার একটি বাড়িতে এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। আটক ধর্ষকের নাম বাদশা ভূইয়া (৩৫)। সে ওই এলাকার ফজলুল হক ভূইয়ার ছেলে। থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার বিকেলে আশুলিয়ার উত্তর গাজীরচট ভূইয়া মার্কেটের কালামের হোটেলে পাওনা টাকা আনতে যান এক গৃহবধূূ। কালাম দোকানে না থাকায় তিনি সেখানে বসে অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় স্থানীয় বখাটে সুজন ভূইয়ার কুনজর পড়ে ওই গৃহবধূ।
পরে সুজন ভূইয়া তার পাওনা টাকা তুলে দেয়ার কথা বলে মার্কেট মালিক বাদশা ভূইয়ার কাছে নিয়ে যান। বিষয়টি জানার পর হোটেল মালিক কালাম ওই গৃহবধূকে ডাকতে গেলে তাকেও মারধর করে তাড়িয়ে দেয় সুজন ও বাদশা ভূইয়া। পরে ওই গৃহবধূকে একটি ঘরের ভেতর আটকে রেখে রাতভর ধর্ষণ করে তারা। একপর্যায়ে গৃহবধূ অচেতন হয়ে পড়লে তার কাছে থাকা নগদ ১৯ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় ওই দুই লম্পট। সকালে জ্ঞান ফেরার পর ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ বিষয়টি জানিয়ে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। আশুলিয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুল ইসলাম ডাবলু বলেন, লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ধর্ষণের অভিযোগে বাদশা ভূইয়া নামে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এছাড়া পলাতক ধর্ষক সুজন ভূইয়াকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।


কিশোরগঞ্জে স্কুলছাত্রী ধর্ষণের শিকার
স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে জানান, কিশোরগঞ্জে তৃতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী ধর্ষিত হয়েছে। আহত অবস্থায় মেয়েটিকে শহরের জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার যশোদল পাক্কারমাথা এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক নাসির (৩০) পলাতক রয়েছে।
পারিবারিক সূত্র জানায়, তৃতীয় শ্রেণি পড়ুয়া মেয়েটিকে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে প্রতিবেশী আমীর মেম্বারের বখাটে ছেলে নাসির ফুসলিয়ে নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে। মেয়েটির আর্তচিৎকারে স্বজনেরা এগিয়ে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে শহরের জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।
কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আবু শামা মো. ইকবাল হায়াত জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে থানায় কোন লিখিত অভিযোগ করা হয়নি। তবে তিনি এলাকায় পুলিশ ফোর্স পাঠিয়েছেন। ঘটনার পর থেকে ধর্ষক পলাতক বলে জানা গেছে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর