× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার

নিউ ক্যালেডোনিয়ার স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোট চলছে

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৪ নভেম্বর ২০১৮, রবিবার, ১১:০১

নিজেদের স্বাধীনতা প্রশ্নে গণভোট হচ্ছে ফরাসি ভূখন্ড নিউ ক্যালেডোনিয়া। এটি ফ্রান্সের প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলভুক্ত একটি এলাকা। এই গণভোটে সিদ্ধান্ত হবে নিউ ক্যালেডোনিয়া ফ্রান্সের সঙ্গেই যুক্ত থাকবে নাকি তারা স্বাধীন দেশ হিসেবে আবির্ভূত হবে। আদিবাসী কনক জনগোষ্ঠীর স্বাধীনতাকামীদের সহিংস আন্দোলনের পর প্রায় দুই দশক আগে এই গণভোটের প্রতিশ্রুতিতে একটি চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তি অনুযায়ী ওই অংশে গণভোটে ভোট দিচ্ছিলেন ভোটাররা। এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি। স্বাধীনতার পক্ষে যেসব গ্রুপ রয়েছে তারা কনক ভোটারদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন তাদেরকে ভোট দিতে। ভোটারদের বলেছেন, প্যারিসের ঔপনিবেশিক কর্তৃত্বের শেকল ভেঙে বেরিয়ে আসুন।
তবে জনমত জরিপ বলছে, বেশির ভাগ ভোটার স্বাধীনতার আহ্বানকে প্রত্যাখ্যান করতে পারেন। নিউ ক্যালেডোনিয়ায় মোট বৈধ ভোটার এক লাখ ৭৫ হাজার। এ ভূখন্ডটি অস্ট্রেলিয়া থেকে পূর্ব দিকে। সেখানে রয়েছে জাতিগত ইউরোপীয়ান। আর তাদের মধ্যে ফরাসি জাতীয়তাবোধ খুব শক্তিশালী। আবার পর্যবেক্ষকরা বলছেন, কনক জাতিগোষ্ঠীর অনেকে আবার ফ্রান্সের সঙ্গে থাকতে চাইছেন। দুপুর পর্যন্ত সেখানে ভোটদানের হার শতকরা ৪১.৮ ভাগ। ২০১৪ সালে সেখানে স্থানীয় নির্বাচনে একই সময়ে ভোট পড়েছিল শতকরা ২৭.৩ ভাগ।  নিউ ক্যালেডোনিয়া একটি প্রত্যন্ত দ্বীপ। প্রতি বছর তা পরিচালনা করার জন্য ফরাসি সরকারের কাছ থেকে তারা পায় ১৫০ কোটি ডলার। ওই দ্বীপে রয়েছে নিকেলের বিশাল ভান্ডার। ইলেক্ট্রনিক পণ্য তৈরিতে এই নিকেল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। ফ্রান্স এই দ্বীপটিকে ওই অঞ্চলে রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পদ হিসেবে দেখে থাকে। গণভোটের ফল ঘোষণার পর এ বিষয়ে জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেয়ার কথা রয়েছে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রনের।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর