× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ২২ জানুয়ারি ২০১৯, মঙ্গলবার

সম্পোর্কন্নয়ের লক্ষ্যে পাকিস্তানে মার্কিন দূত

বিশ্বজমিন

মানবজমিন ডেস্ক | ৬ নভেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার, ১১:০৮

পাকিস্তানের সঙ্গে পুনরায় সম্পর্কোন্নয়নের জন্য নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ লক্ষ্যে ইসলামাবাদে এসেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের একজন উচ্চপদস্থ সহকারী। পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করার জন্য মঙ্গলবার সকালে দেশটিতে পৌছান অ্যালাইস ওয়েলস নামের ওই ক’টনীতিক। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য-এশিয়া বিষয়ক প্রিন্সিপাল ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি। এ সফরে তিনি দেশদুটির মধ্যেকার সমস্যাগুলো সমাধানের মাধ্যমে পুনরায় সম্পর্ক বৃদ্ধির প্রচেষ্টা চালাবেন। সোমবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মুহাম্মদ ফয়সাল জানান, পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ওই প্রতিনিধির বৈঠকের কথা রয়েছে। তার এই সফরের প্রধান উদ্দেশ্য হবে পাকিস্তানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক পুনরুদ্ধার করা। কিন্তু এটি পুরোপুরি নির্ভর করছে দেশ দুটি আফগানিস্তানে শান্তি প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে একই সমাধানে পৌঁছাতে পারে কিনা তার উপর।
সম্প্রতি পাকিস্তান তালেবানের একজন প্রভাবশালী নেতাকে মুক্তি দিয়েছে। মোল্লাহ আব্দুল গলি বারাদার নামের ওই জঙ্গি নেতা তালেবান প্রধান মোল্লাহ ওমরের প্রধান সহকারী ছিল। ২০১০ সালে করাচি থেকে যুক্তরাষ্ট্র ও পাকিস্তান সেনাবাহিনীর এক যৌথ অভিযানে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তালেবান ইতিমধ্যে তার মুক্তির কথা নিশ্চিত করেছে। তবে পাকিস্তান এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাই পাকিস্তানের সম্পর্ক উন্নয়ন করতে হলে তালেবান দমনের বিষয়ে দেশদুটিকে ঐক্যমতে পৌঁছাতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি মেনে নিয়ে তখন দেশটিকে হয় তালেবান নেতাদের সঙ্গে দর কষাকষি করে তাদের থামাতে হবে নচেৎ পাকিস্তানে সর্বাÍোক অভিযান চালিয়ে জঙ্গি সংগঠনটির মূলোৎপাটন করতে হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর