× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার

এমসি কলেজের শিক্ষার্থী সৌমিককে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা

দেশ বিদেশ

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট থেকে | ৮ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ৯:৫০

গোলাপগঞ্জে সৌমিক শাহরিয়ার নামে সিলেট এমসি কলেজের এক শিক্ষার্থীকে রাতের আঁধারে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ওই শিক্ষার্থী সিলেট এমসি কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ও গোলাপগঞ্জ উপজেলা সদর ইউপির চৌঘরী গ্রামের মৃত আবদুল মতিনের ছেলে। বর্তমানে সিলেট ওমেক-এ মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছে। আহতের বড় ভাই শাওন আহমদ জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় গোলাপগঞ্জ বাজার থেকে সিএনজিতে করে বাড়ির সামনে নামে। নামামাত্র ওত পেতে থাকা প্রাইভেট কারে করে আসা ৩ জন দুর্বৃত্ত ধারালো অস্ত্র দিয়ে সৌমিককে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালায়। এসময় তার চিৎকার শুনে বড় ভাই শাওন বাড়ি থেকে বের হলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। ওই শিক্ষার্থীর বাড়ি উপজেলার সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের পাশেই। শাওন বলেন, তার জ্ঞান ফিরলে হয়তো কোনো হামলাকারীর পরিচয় বলতে পারবে।
আহত সৌমিককে তাৎক্ষণিক উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তার অবস্থার অবনতি দেখে সিলেটে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিলে তাৎক্ষণিক তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে সে ওই হাসপাতালের ৩য় তলার ৯ নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে এখনো জ্ঞান ফিরেনি। তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপানো হয়েছে। এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি একেএম ফজলুল হক শিবলীর সঙ্গে আলাপ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাইনি। পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে ওইদিন রাত প্রায় ১টায় দাঁড়িপাতন এলাকা থেকে সাদা রংয়ের একটি কার উদ্ধার করেছেন আমাদের এসআই মৃদুল কুমার। ওই গাড়িতে ৪-৫টা লোক ছিল। তারা পুলিশ দেখে পালিয়ে যায়।’
আহতের বড় ভাই বলেন, ‘ভাইয়ের চিকিৎসা কাজে ব্যস্ত থাকায় থানায় এখনো কোনো অভিযোগ দেইনি। ভাই একটু সুস্থ হলেই  আইনের আশ্রয় নেবো।’

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর