× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৮ নভেম্বর ২০১৮, রবিবার

কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ৪ মন্ত্রী

প্রথম পাতা

বিশেষ প্রতিনিধি | ৮ নভেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার, ১০:০৫

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ পেয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন টেকনোক্র্যাট চার মন্ত্রী। তবে চার মন্ত্রীর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করার আগ পর্যন্ত তাদের কাজ চালিয়ে যেতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সকালে পদত্যাগপত্র জমা দেয়া চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তার বাসভবন গণভবনে  দেখা করতে গেলে তিনি এই পরামর্শ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রীর দপ্তরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মঙ্গলবার পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার পর তারা দায়িত্বে নেই ধরে নিয়ে গতকাল নিজেদের দপ্তরে আসেন নি টেকনোক্র্যাট চার মন্ত্রী। তবে কোনো কোনো টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী বাসায় বসেই ফাইল দেখেছেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে ধর্মমন্ত্রীর একান্ত সচিব ও সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন বলেন, মন্ত্রী মহোদয় অফিসে আসেন নি। তবে বাসায় বসে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ফাইল দেখেছেন। ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানান, সরকার প্রধানের নির্দেশনার পর আমি যথারীতি অফিস করছি।
প্রধানমন্ত্রী যেকোনো মন্ত্রীকে পদত্যাগের নির্দেশ দিতে পারেন। কারণ প্রধানমন্ত্রীর কাছে মন্ত্রিরা দায়বদ্ধ। সেই অনুযায়ী আমরা পদত্যাগপত্র দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী এই পদত্যাগপত্র গ্রহণ করতে পারেন, আবার নাও করতে পারেন। সুতরাং প্রধানমন্ত্রী যতক্ষণ পর্যন্ত পদত্যাগপত্র গ্রহণ না করবেন ততক্ষণ পর্যন্ত মন্ত্রীরা স্বপদে বহাল থাকবেন- এটাই নিয়ম।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, পদত্যাগপত্র জমা দেয়ার পর নৈতিক অবস্থানের কারণে আর দায়িত্বে না ফেরার বিষয়টি তখনই আসতো যদি আমি স্বেচ্ছায় পদত্যাগপত্র দিতাম। আমি তো প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছায় পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি। তারপরও সেই নৈতিকতার কথা মাথায় রেখে সরকারি গাড়ি বিদায় দিয়ে বাসায় বসে ছিলাম। সরকার আমাকে বলেছে- কে বলেছে, আপনি মন্ত্রী না? সুতরাং আমাদের বলা হয়েছে- প্রধানমন্ত্রী যতক্ষণ পর্যন্ত না পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেন ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি/আপনারা দায়িত্ব পালন করে যাবেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমানও গতকাল সচিবালয়ের নিজ দপ্তরে আসেন নি। তবে ফাইলের খোঁজ নিয়েছেন।

একই সঙ্গে তিনি নিজের নামে সচিবালয়ে প্রবেশে অস্থায়ী পাস সংগ্রহের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন। অস্থায়ী পাস সংগ্রহের কারণ সম্পর্কে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান, তিনি (মন্ত্রী) মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন। মন্ত্রণালয়ের বেশ কিছু কাজের জন্য তাকে সচিবালয়ে আসতে হতে পারে। এ জন্যই তিনি সচিবালয়ে প্রবেশের ক্ষেত্রে অস্থায়ী পাস সংগ্রহের জন্য বলেছেন। একইভাবে নিজ বাসায় বসে মন্ত্রণালয়ের গুরুত্বপূর্ণ ফাইলের খোঁজখবর নিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী নুরুল ইসলাম, বিএসসি। মন্ত্রীর পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, তিনিও বুধবার রাজধানীর ইস্কাটনস্থ নিজ দপ্তরে যাননি। এর আগে গত মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে চার টেকনোক্র্যাট মন্ত্রী মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পদত্যাগপত্র জমা দেন। তারা হলেন- ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী মতিউর রহমান, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম, বিএসসি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জানা গেছে, পদত্যাগপত্রগুলো প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের পর প্রেসিডেন্টের কাছে যাবে। প্রেসিডেন্টের অনুমোদনের পর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে পদত্যাগের বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর