× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার
অলিম্পিক নারী ফুটবল বাছাই পর্ব

মিয়ানমারের কাছে বড় হারই দেখলো সাবিনারা

খেলা

স্পোর্টস রিপোর্টার | ৯ নভেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:০৫

দীর্ঘ দুই বছরের বিরতিতে গতকাল খেলতে নামে জাতীয় নারী ফুটবল দল। আর ম্যাচ শেষে তিক্ত অভিজ্ঞতা নিলো সাবিনা বাহিনী। নারী ফুটবলে মিয়ানমারের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা ছিল না বাংলাদেশের। আর অলিম্পিক বাছাই ফুটবলে ‘অচেনা’ মিয়ানমারের বিপক্ষে বড় হারই দেখলো বাংলাদেশ। গতকাল বাছাইপর্বের প্রথম পর্বের খেলায় মিয়ানমারের বিপক্ষে ৫-০ গোলে হারে কোচ গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। ইয়াংগুনে ১-০ গোলে পিছিয়ে বিরতিতে যায় সাবিনারা। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে আরো চার গোল হজম করে তারা। ম্যাচে জোড়া গোল করেন বার্মিজ তারকা উইন থিয়েগি তুন।
তবে এখনও দ্বিতীয় পর্বে যাওয়ার সুযোগ রয়েছে বাংলাদেশের। সেক্ষেত্রে গ্রুপের পরের দুই ম্যাচে ভারত ও নেপালের বিপক্ষে জিততে হবে। আগামীকাল ভারত ও ১৩ই নভেম্বর নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এর আগে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন বলেন, ‘গ্রুপের তিনটি দলই আমাদের চেয়ে র‌্যাঙ্কিংয়ে এগিয়ে। আর মিয়ানমার আমাদের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ। এ দলটির সঙ্গে আমরা কখনোই খেলিনি। তবে ভারত ও নেপালের সঙ্গে আমাদের মেয়েদের খেলার অভিজ্ঞতা আছে। আমাদের দলটি বয়সে তরুণ। এখানে তাদের শেখার সুযোগ।’
ভারতের আগে বাংলাদেশকে গোনায় রাখেন মিয়ানমার কোচ উইন থু মো। তিনি বলেন, ‘আমরা গ্রুপের ফেভারিট। র‌্যাঙ্কিংয়েও বাকিদের চেয়ে এগিয়ে। বাংলাদেশ এখন একটি সুগঠিত দল তবে আমাদের চেয়ে তারা অভিজ্ঞতায় পিছিয়ে। তবে তাদেরও সুযোগ আছে। প্রতি গ্রুপ থেকে দুটি করে দল কোয়ালিফাই করবে।’ আর আসর শুরুর আগে ভারতের কোচ মায়মাল রকি বলেন, বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। এটা ভালো ম্যাচ হবে। বাংলাদেশের মেয়েদের জন্য এটি অসম লড়াই। কারণ, বাংলাদেশের নারী ফুটবল দল মানেই কিশোরীদের প্রাধান্য। স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুন ছাড়া জাতীয় দলের বাকিরা অনূর্ধ্ব-১৮’র খেলোয়াড়। এ দলটিই কয়েকদিন আগে তাজিকিস্তানে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্ব খেলে এসেছে। গত মাসে সাফ নারী অনূর্ধ্ব-১৫ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ। এর আগে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের গ্রুপ পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশের কিশোরীরা। তবে একটু বড়দের ফুটবলে চিত্রটা ভিন্ন। তাজিকিস্তানে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৯ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্বে দক্ষিণ কোরিয়ার কাছে ৭-০ আর চাইনিজ তাইপের কাছে ২-০ গোলে হেরে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশ। অবশ্য শেষ ম্যাচে স্বাগতিক তাজিকিস্তানকে ৫-১ গোলে হারিয়ে সান্ত্বনা নিয়ে দেশে ফেরে মেয়েরা। বাংলাদেশ নারী জাতীয় ফুটবল দল দুই বছর না খেলার কারণে এখন র‌্যাঙ্কিংয়েই নেই। বাংলাদেশের সর্বশেষ অবস্থান ছিল ১১২তম। মিয়ানমারের র‌্যাঙ্কিং ৪৪, ভারত ৫৯ ও নেপাল ১০৯।
অলিম্পিক গেমসে পুরুষ ফুটবল দল অনূর্ধ্ব-২৩ বয়সের হলেও মেয়েদের প্রতিযোগিতা জাতীয় দলের। এশিয়ার ৪৭ দেশের মধ্যে ২৫ দেশ অংশ নিচ্ছে এবারের বাছাই পর্বে। এর মধ্যে প্রথম রাউন্ডে ১৮ দেশ অংশ নিচ্ছে ৪ গ্রুপে ভাগ হয়ে। ফিফা মহিলা র‌্যাঙ্কিং অনুযায়ী ভিয়েতনাম ও উজবেকিস্তান খেলবে সরাসরি দ্বিতীয় রাউন্ডে। র‌্যাঙ্কিংয়ের আরো উপরের ৫ দেশ অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, উত্তর কোরিয়া, চীন ও থাইল্যান্ড সরাসরি তৃতীয় রাউন্ডে খেলবে । প্রথম পর্বের প্রত্যেক গ্রুপের শীর্ষ দুই দল উঠবে দ্বিতীয় রাউন্ডে। ৩ গ্রুপে ভাগ হয়ে দ্বিতীয় রাউন্ড খেলার পর কেবল গ্রুপ চ্যাম্পিয়নরা তৃতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পাবে। রিও অলিম্পিক গেমস ফুটবলের বাছাইয়ে খেলেনি বাংলাদেশের মেয়েরা। এর আগে অলিম্পিক নারী ফুটবলের বাছাইয়ে বাংলাদেশ অংশ নেয় ২০১১ সালে। সেবার বাছাই পর্বের প্রথম রাউন্ডে ‘বি’ গ্রুপে ঢাকায় বাংলাদেশ দল ভারত ও উজবেকিস্তানের কাছে সমান ৩-০ গোলে হার দেখেছিল।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর