× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার

শাহ নূরে উজ্জ্বীবিত আওয়ামী লীগের তৃণমূল

ইলেকশন কর্নার

স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে | ১৪ নভেম্বর ২০১৮, বুধবার, ৮:১০

বাজিতপুর ও নিকলী উপজেলা নিয়ে গঠিত কিশোরগঞ্জ-৫ আসন। জাতীয় সংসদের এ আসনে রয়েছে বাজিতপুর পৌরসভা ও উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন এবং নিকলী উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন। এ আসনে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৩ জন। ঐতিহ্যগতভাবে ‘আওয়ামী বিরোধী’ দুর্গ হিসেবে পরিচিত এই আসনটি ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দখলে আসে। ওই নির্বাচনে বিজয়ী আলহাজ্ব মো. আফজাল হোসেন ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়ে দ্বিতীয় বারের মতো সংসদ সদস্য হন। তবে এমপি আফজাল হোসেন ছাড়াও এই আসনে অন্তত ছয় নেতা মনোনয়নের ব্যাপারে জোর তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের এই ছয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি, সাবেক অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, বাজিতপুর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান ও এ আসনে আওয়ামী লীগের দুইবারের মনোনয়নপ্রাপ্ত প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মো. আলাউল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বাজিতপুর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শেখ নূরুন্নবী বাদল, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অজয় কর খোকন, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য শহীদুল্লাহ মুহাম্মদ শাহ্‌ নূর, জেলা কৃষকলীগ সহ-সভাপতি ফারুক আহম্মেদ এবং বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কার্যকরি কমিটির সাবেক সদস্য ব্যারিস্টার মো. রফিকুল ইসলাম মিল্টন। তাঁদের মধ্যে শহীদুল্লাহ মুহাম্মদ শাহ্‌ নূর ছাড়া বাকি পাঁচ জন মনোনয়নপ্রত্যাশী প্রার্থী বদলের ডাক দিয়ে এক মঞ্চে দীর্ঘদিন ধরে সভা-সমাবেশে সরব রয়েছেন।
এক মঞ্চের এই পাঁচ মনোনয়ন প্রত্যাশীর বাইরে থেকে শাহ্‌ নূর এই আসনের দুই উপজেলায় গণসংযোগ ও পথসভার মাধ্যমে ব্যাপক তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। তার এই তৎপরতায় উজ্জ্বীবিত আওয়ামী লীগের তৃণমূল। শাহ্‌ নূর সমর্থকেরা জানিয়েছেন, মনোনয়ন পেতে শাহ নূর দুই উপজেলায় ব্যাপক গণসংযোগ করছেন। প্রায় প্রতিদিনই এলাকায় এলাকায় গিয়ে পথসভা, উঠান বৈঠক করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সংগঠিত করার চেষ্টা করছেন তিনি। এছাড়াও নৌকা মার্কায় ভোট চেয়ে তিনি নিকলী ও বাজিতপুর উপজেলার রাস্তা-ঘাট, নৌ-ঘাট, হাটবাজারসহ বিভিন্ন জনবহুল স্থানে সাঁটিয়েছেন ব্যানার, পোস্টার। বাজিতপুর-নিকলীর আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা বলেন, শাহ্‌ নূর একজন ক্লিন ইমেজের উদ্যমী রাজনীতিক। সুশিক্ষিত এই তরুণ একজন সফল ব্যবসায়ীও। দুই উপজেলায় আওয়ামী লীগের লোকজনের কাছে তার ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে বলেও তার সমর্থকেরা জানিয়েছেন। শাহ্‌ নূর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করাই আমার উদ্দেশ্য ও পরিকল্পনা। জনগণকে আশা না দিয়ে সেবক হিসেবে কাজ করা আমার উদ্দেশ্য। উন্নয়নের শপথই আমার অঙ্গীকার। আশা করছি, প্রধানমন্ত্রী কিশোরগঞ্জ-৫ আসন থেকে আমাকে মনোনয়ন দেবেন।
মনোনয়ন পেলে নৌকা প্রতীকের বিজয়ের মধ্য দিয়ে বাজিতপুর ও নিকলী আসনকে একটি আদর্শ আসন হিসেবে গড়ে তুলব। দল মত নির্বিশেষে সবার জন্যই আমি কাজ করব।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর