× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার

খোন্দকার দেলোয়ারের আসনে দুই ছেলেই চান ধানের শীষ

ইলেকশন কর্নার

রিপন আনসারী, মানিকগঞ্জ থেকে | ১৯ নভেম্বর ২০১৮, সোমবার, ৮:৫৫

মানিকগঞ্জ-১ আসনে ৫ বারের সংসদ সদস্য বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের দুই পুত্র ধানের শীষে মনোনয়ন পেতে নির্বাচনী মাঠে নেমেছেন। এদের একজন হলেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য খোন্দকার আবদুল হামিদ ডাবলু অপরজন জেলা বিএনপির কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আকবর হোসেন বাবলু। দু’জনই দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা দিয়েছেন। দল থেকে তাদের দু’জনের যে কারো হাতে ধানের শীষ তুলে দেয়া হলে তারা একে অপরের পক্ষে কাজ করবেন বলে জানিয়েছেন। ঘিওর, দৌলতপুর ও শিবালয় উপজেলা নিয়ে গঠিত মানিকগঞ্জ-১ আসনটিতে স্বাধীনতা পরবর্তী ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন ৫ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। বিএনপির শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত থাকলেও ২০০৮ সালে এই ঘাঁটি চলে যায় আওয়ামী লীগের দখলে। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এবিএম আনোয়ারুল হক ও ২০১৪ সালের নির্বাচনে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। খোন্দকার দেলায়ার হোসেনের অবর্তমানে তার দুই ছেলের মধ্যে খোন্দকার আবদুল হামিদ ডাবলু রাজনীতিতে বেশি সক্রিয় আছেন।
বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্যের পাশাপাশি তিনি মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপির সহসভাপতি। তার দাবি, তিনি তার পিতা খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের সঙ্গে দীর্ঘদিন মাঠ ঘাট চষে বেড়িয়েছেন। পক্ষান্তরে বড় ছেলে আকবর হোসেন বাবলু পরিবার পরিজন নিয়ে বেশিরভাগ সময় কাটিয়েছেন দেশের বাইরে। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী খোন্দকার আবদুল হামিদ ডাবলু জানিয়েছেন তিনি দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী। আমরা দুই ভাই মনোনয়ন চেয়েছি, আশা করি আমি দলীয় মনোনয়ন পেলে বড় ভাই আমার পক্ষে কাজ করবেন। দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের বড় পুত্র আকবর হোসেন বাবলু সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, আমার দুই ভাই দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ঠিকই কিন্তু দল থেকে আমাদের মধ্যে যাকেই মনোনয়ন দেয়া হবে তার পক্ষে একসঙ্গে কাজ করবো।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর