× প্রচ্ছদ অনলাইনপ্রথম পাতাশেষের পাতাখেলাবিনোদনএক্সক্লুসিভভারতবিশ্বজমিনবাংলারজমিনদেশ বিদেশশিক্ষাঙ্গনরকমারিপ্রবাসীদের কথাবই থেকে নেয়া তথ্য প্রযুক্তি শরীর ও মন চলতে ফিরতে ষোলো আনা ইলেকশন কর্নার
ঢাকা, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, সোমবার
ময়মনসিংহ-১

তৃণমূলের আস্থা বিএনপির সালমান

ইলেকশন কর্নার

ওমর ফারুক সুমন, হালুয়াঘাট (ময়মনসিংহ) থেকে | ২৩ নভেম্বর ২০১৮, শুক্রবার, ৯:৫০

হালুয়াঘাট ও  ধোবাউড়া উপজেলার ১৯ টি ইউনিয়ন নিয়ে ময়মনসিংহ-১ সংসদীয় আসন। এখানে মোট ভোট রয়েছে ৩ লাখ ৭৬ হাজার ৪২০ ভোট। তার মাঝে হালুয়াঘাটে রয়েছে ২ লাখ ৩৩ হাজার ১৪০ ভোট, আর ধোবাউড়ায় রয়েছে ১ লাখ ৪৪ হাজার ১৮০ ভোট। বিএনপি  থেকে দলীয় মনোনয়ন পেতে ফরম জমা দিয়েছেন ওমর ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও হালুয়াঘাট উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক সালমান ওমর রুবেল। তৃণমূল মানুষের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বিএনপি’র এই নেতা দীর্ঘদিন ধরে অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। তার প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে। তাকে দল থেকে মনোনয়ন দিলে সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণ হবে। সূত্র জানায়, ২০১২ সাল থেকে হালুয়াঘাট ও  ধোবাউড়ায় সালমান ওমর রুবেল বিনামূল্যের চক্ষুক্যাম্প করে হাজার হাজার মানুষকে বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা দিয়েছেন।
অনেকেই মন্তব্য করেন, নারী-পুরুষকে বিনামূল্যে চোখের চিকিৎসা পত্র, অস্ত্রোপচারের ব্যবস্থা ও প্রয়োজনীয় ওষুধ দিয়ে তৃণমূল মানুষের মাঝে স্থান করে নিয়েছেন এই নেতা। গত ৭ বছরে এই সালমানের চক্ষু ক্যাম্পের বিনামূল্যে চক্ষু  সেবা নিয়েছেন  হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়া সহ বিভিন্ন উপজেলার প্রায় ২৯ হাজার মানুষ। অন্যান্য সহযোগিতাসহ তা লক্ষাধিকে দাঁড়িয়েছে। তৃণমূল মানুষের সঙ্গে কথা বলে ও বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, গরিব, প্রতিবন্ধী, কন্যা দায়গ্রস্ত পিতা, গরিব ও মেধাবী শিক্ষার্থী, মসজিদ, মাদরাসা, গীর্জা, প্রভৃতি জায়গায় রয়েছে তার বিশেষ অবদান। বিএনপি নেতা সুজারুল ইসলাম বলেন,  সালমান ওমর রুবেল গত কয়েক বছরে লক্ষাধিক মানুষকে বাড়িয়েছেন সাহায্যের হাত। বিএনপি নেতা হিসাম বাক্কার ও আবদুল  হেকিম খান বলেন, এই নেতা ব্যক্তিগত তহবিল থেকে কোটি কোটি টাকা গরিব ও অসহায় মানুষের জন্য বিতরণ করেছেন। যোগানিয়া গ্রামের ফাতেমা খাতুন (৫৫) বলেন, এই সালমান আমার চক্ষু ভালো কইরা দিছে। আমরা চায় উনি যেন এমপি হয়।

হালুয়াঘাটের ইটাখলা গ্রামের সবিতা রানী পাল (৬০) বলেন, ভগবানের কাছে লাখ লাখ শুকরিয়া, আমার দুইটা চোখ অপারেশন করে ভালো হয়েছে। ভগবান উনার মঙ্গল করেক। তেমনিভাবে কৃষ্টপুরের জোসনা (৬০), বাউসার রাবেয়া (৬০), নূরজাহান (৫৮) এরা বলেন, তারা বিনামূল্যে চোখের ছানি অপারেশন করেছেন। ভালো আছেন তারা।  তারা বলেন, এ রকম লোক এমপি হইলে গরিবের অনেক উপকার হবে। শুধু তাই নয়, জানা যায়, এদের মতো হাজার হাজার রোগী চক্ষু সেবা নিয়ে তারা উপকৃত হয়েছেন এই সালমান ওমর রুবেলের চক্ষু ক্যাম্প থেকে।

অবশ্যই দিতে হবে *
অবশ্যই দিতে হবে *
অন্যান্য খবর